ঢাকা, বুধবার, ৬ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ আগস্ট ২০১৯
bangla news

ডিএসইর প্রধান সূচক ৫ হাজারের নিচে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-২২ ৪:১৬:০৪ পিএম
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের লোগো

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের লোগো

ঢাকা: বিভিন্ন সংস্কারের পরও পতন ঠেকানো যাচ্ছে না দেশের পুঁজিবাজারে। সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবারও (২২ জুলাই) পতনে শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারের লেনদেন। অব্যাহত পতনের কারণে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫ হাজার পয়েন্টের নিচে নেমে গেছে। এদিন অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচকও কমেছে ১৯৯ পয়েন্ট।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিকে দুইদিন বিরতির পর দরপতনের প্রতিবাদে ফের বিক্ষোভ করেছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

সোমবার দুপুর আড়াইটা থেকে বিকেল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। ডিএসইর সামনে বিক্ষোভের আয়োজন করে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ।

এ সময় বিনিয়োগকারীরা বলেন, বাজারে ফোর্সড সেল অব্যাহত রয়েছে। এটি বন্ধ করতে হবে। একই সঙ্গে বাজারে কারসাজি চক্র সক্রিয় রয়েছে বলে তারা দাবি করেন। তারা বলেন, বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তারা মনে করছেন প্রতিনিয়ত বাজার আরো খারাপের দিকে যাবে। এজন্যই তারা বাজার থেকে বের হয়ে যাচ্ছেন। এই অবস্থায় পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৯৬৬ পয়েন্টে। যা ডিএসইতে ২ বছর ৭ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর ডিএসইএক্স সূচক ছিল ৪ হাজার ৯৫৬ পয়েন্টে।

ডিএসইর অপর দুই সূচকের মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৮ পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক ২৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১১৩৯ ও ১৭৭৬ পয়েন্টে।

ডিএসইতে ৪৬৪ কোটি ১৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৩৬৮ কোটি টাকার। অর্থাৎ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৯৬ কোটি টাকা।

ডিএসইতে ৩৫৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২৭৭টির শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে, বেড়েছে ৬০টির এবং ১৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

টাকার অংকে এ বাজারে লেনদেনে শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- ফরচুন সুজ, স্কয়ার ফার্মা, ইউনাইটেড পাওয়ার, ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স, সি পার্ল, সিনো বাংলা, মুন্নু সিরামিক, ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স, গ্রামীণফোন এবং ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকো।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৯৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ২১৫ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৮৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৫১টির, কমেছে ২১৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টির দর। 

এ বাজারে ২১ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে চার কোটি টাকা বেশি। আগের দিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১৭ কোটি টাকার।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১২ ঘণ্টা, জুলাই ২২, ২০১৯
এসএমএকে/জেডএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   শেয়ার বাজার
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-07-22 16:16:04