ঢাকা, রবিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৬ মে ২০১৯
bangla news

প্রথমদিনেই জমজমাট পর্যটন মেলা

তামিম মজিদ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-১৮ ৭:৩২:৩১ পিএম
মেলায় দর্শনার্থীদের ঢল। ছবি: বাংলানিউজ

মেলায় দর্শনার্থীদের ঢল। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: প্রথমদিনেই জমজমাট হয়ে উঠেছে বিমান বাংলাদেশ ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ফেয়ার। বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) বিকেলে মেলা উদ্বোধনের পর দর্শনার্থীদের ঢল নামে।       

পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বসেছে এ মেলা। মেলার আয়োজন করেছে ট্যুরিজম অপারেটরস অব বাংলাদেশ (টোয়াব)। 

ভ্রমণ পছন্দ করেন না, এমন মানুষ খোঁজে পাওয়া যাবে না। তবে বাঙালি জাতি বিদেশ ভ্রমণের প্রতি একটু বেশিই দুর্বল। তাই সন্তানদের নিয়ে পছন্দের দেশে ভ্রমণে যেতে দেখছেন প্যাকেজ। কেউ বা মেলায় বুকিংও দিচ্ছেন। 

বিকেল ৫টায় মেলার উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মেলা ঘুরে দেখেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী।

রাষ্ট্রপতি যাওয়ার পর পরই দর্শনার্থীদের জন্য মেলা উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। সন্ধ্যায় মেলায় ঢল নামে ভ্রমণ পিপাসু দর্শনার্থীদের। ছোট ছেলে-মেয়েদের নিয়েও অনেক দম্পতি এসেছেন, তারা খোঁজ খবর নিচ্ছেন, কোন দেশে যেতে কতো খরচ। পছন্দের প্যাকেজকে অগ্রাধিকার দিচ্ছেন তারা। প্রথমদিনেই দর্শনার্থীদের বেশ সাড়া  মিলেছে। তিন দিনব্যাপী এ মেলায় থাকছে নানা অফার। 

মেলায় ঘুরতে আসা তাসলিমা জান্নাত বলেন, আমরা উজবেকিস্তানের প্যাকেজ দেখলাম। এখানকার ইসলামিক সভ্যতা আমাকে মুগ্ধ করেছে। তাই আমরা উজবেকিস্তানের হলিডে প্যাকেজে বুকিং দিয়েছি। স্বামী ও ছেলেকে নিয়ে ঈদের পর ঘুরতে যাবো।

আসাদুল ইসলাম নামে এক দর্শনার্থী বলেন, ভ্রমণ মানুষের মানসিক প্রশান্তি বাড়ায়। টানা কাজের চাপ থেকে মুক্তি পেতে ভ্রমণ একমাত্র উপায়। তাই মেলায় আসলাম। ভুটান ভ্রমণ করতে আগ্রহী। 

মূল মেলার পাশাপাশি থাকছে গোলটেবিল বৈঠক, বিভিন্ন দেশের উপস্থাপনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র। ফলে জমজমাট হয়ে উঠেছে এ পর্যটন মেলা।

এছাড়া মেলায় ‘বৌদ্ধপ্রধান অঞ্চলে ভ্রমণ ব্যবস্থা’ এবং ‘ঢাকার হাজার বছরের ইতিহাস ও ঐতিহ্য’ শীর্ষক দু’টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে শুক্র ও শনিবার। মেলার দ্বিতীয় দিনে থাকছে টোয়াবের সদস্য এবং বিদেশি প্রদর্শকদের অংশগ্রহণে অধিবেশন। ১৪০ জন বিদেশি প্রদর্শক এবারের মেলায় অংশগ্রহণ করছেন। 

মেলায় ভারত, নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইনসহ অন্যান্য দেশের জাতীয় পর্যটন সংস্থা, উজবেকিস্তানসহ দেশ-বিদেশের ট্যুর অপারেটর, ট্রাভেল অপারেটর, বিমান সংস্থা, হোটেল এবং রিসোর্টসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ২২০টি স্টল রয়েছে।

মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। প্রবেশমূল্য ৩০ টাকা। তবে শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে বিটিটিএফের ওয়েবসাইটে (www.bttf.toab.org) নিবন্ধন করে মেলায় আইডি কার্ড প্রদর্শন করে বিনামূল্যে প্রবেশের সুযোগ।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সাল থেকে প্রতিবছর পর্যটন মেলার আয়োজন করে আসছে টোয়াব।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০১৯
টিএম/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   পর্যটন
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-04-18 19:32:31