ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৩ জুলাই ২০১৯
bangla news

পুঁজিবাজারে সূচকের বড় পতন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-১৬ ৬:১২:৫৭ পিএম
ডিএসই-সিএসই লোগো

ডিএসই-সিএসই লোগো

ঢাকা: সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) পুঁজিবাজারে লেনদেনের শুরু থেকেই সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে। এদিন দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের সঙ্গে কমেছে লেনদেন।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিকে, বড় পতনের পেছনে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের নিষ্ক্রিয়তা রয়েছে বলে মনে করছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। তারা বলেন, বাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা ভূমিকা রাখছে না তাই বাজার স্থিতিশীল হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাৎ উল্লাহ ফিরোজ বাংলানিউজকে বলেন, বাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কোনো ভূমিকা নেই। তাই বাজার স্থিতিশীল হচ্ছে না। বাজার স্থিতিশীলতায় নিয়ন্ত্রণ সংস্থাকে ভূমিকা নিতে হবে।

জানা গেছে, আজ ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৬০ দশমিক ৫৫ পয়েন্ট কমে পাঁচ হাজার ২৪৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৬ দশমিক ৪৩  পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক ২৪ দশমিক ৫৪ পয়েন্ট কমে যথাক্রমে ১২১২ ও ১৮৭৬ পয়েন্টে রয়েছে।

এদিকে, মঙ্গলবার লেনদেন শুরুর প্রথম ৫ মিনিট সূচক ৫ পয়েন্ট কমে। এরপর সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে সূচক আরো ১২ পয়েন্ট কমে যায়। বেলা ১১টার দিকে সূচক নিম্নমুখীধারা অব্যাহত থাকে, এ সময় সূচক আরো ৩৬ পয়েন্ট কমে।

এদিন লেনদেন শুরুর দেড় ঘণ্টা পর অর্থ্যাৎ দুপুর ১২টায় ডিএসইর সাধারণ সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৫৬ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ২৫৩ পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১৪ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৬ পয়েন্ট কমে যথাক্রমে ১ হাজার ২১৪ ও এক হাজার ৮৭৫ পয়েন্টে রয়েছে। এরপর দুপুর ১টার দিকে সূচকের একই ধারা অব্যাহত থাকে এবং সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়।

ডিএসইতে মঙ্গলবার টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৩৬৯ কোটি ৯১ লাখ টাকার। যা আগের দিন থেকে ২৭ কোটি টাকা কম। আগের দিন (১৫ এপ্রিল) ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ২৯৬ কোটি দুই লাখ টাকার।

এদিকে মঙ্গলবার ডিএসইতে ৩৪৪টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৫৯টির কমেছে ২৫৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর।

ডিএসইতে এদিন টাকার পরিমাণে সর্বোচ্চ লেনদেন হওয়া ১০টি কোম্পানি হলো— মুন্নু সিরামিক, ফরচুন সুজ, বিএসসিসিএল, রেকিট বেনকেজার, স্কয়ার ফার্মা, গ্রামীণ ফোন, ইস্কয়ার নিটিং, ব্রাক ব্যাংক, সুহৃদয় ও মুন্নু স্ট্যাফলার।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৮৭ পয়েন্ট কমে ১৬ হাজার ১০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২১৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৩৯টির, কমেছে ১৪৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির দর। এদিন সিএসইতে ১১ কোটি ৫৫ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১২ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৬, ২০১৯
এসএমএকে/এমজেএফ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-04-16 18:12:57