ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ চৈত্র ১৪২৫, ২৬ মার্চ ২০১৯
bangla news

কৃষিতে ৮ শতাংশের বেশি সুদ নয়: কৃষিমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-০৭ ২:০৫:৩০ পিএম
আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী | ছবি: জিএম মুজিবুর

আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী | ছবি: জিএম মুজিবুর

ঢাকা: কৃষি ও প্রাণিসম্পদ খাতের উৎপাদন কম-বেশি হওয়ায় অভ্যন্তরীণ বাজারে নানা সমস্যা থাকে। এ খাতকে টিকিয়ে রাখতে ব্যাংক ঋণের সুদহার কোনভাবেই ৮ শতাংশের বেশি হওয়া উচিত নয় বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) রাজধানীর আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার বসুন্ধরায় ১১তম আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

ড. রাজ্জাক বলেন, দেশের দারিদ্র্য মোকাবেলায় আজ কৃষি ও প্রাণিসম্পদ সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখছে। ডেইরি ফার্ম, পোল্ট্রি ফার্ম, কৃষি ফার্ম করে অনেকেই সাবলম্বী হয়েছেন। আবার এগুলোতে উৎপাদন বেশি হলে অনেক সময় ভয়াবহ লোকসানে পড়তে হয় খামারিদের। আমাদের অভ্যন্তরীণ বাজার বাড়াতে এবং আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশ করতে হবে। এজন্য খামারিদের যা যা সহযেগিতা লাগবে তার সব করবে সরকার।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, স্বল্প সুদে ঋণ দেয়ার জন্য সরকার বার বার বলেছে। একটা সময় ব্যাংকগুলো কম সুদে ঋণ দিলেও এর দু-তিন মাস পর আবারও ব্যাংক ঋণের সুদের হার বেড়ে যায়। আমার মনে হয় সম্ভাবনাময় কৃষি ও প্রাণিসম্পদ খাতকে বাঁচাতে হলে ব্যাংক ঋণের সুদহার কোনোভাবেই ৮ শতাংশের বেশি হওয়া উচিত না। এজন্য খামারিসহ অন্যান্যদের এক হয়ে কাজ করতে হবে, দাবি-দাওয়া তুলতে হবে।

তিনি বলেন, পোল্ট্রি শিল্প নিয়ে মিডিয়ায় অনেক সময় নেতিবাচক খবর আসে। 
অনেকেই বলেন, ট্যানারি বর্জ্য দিয়ে পোল্ট্রি ফিড তৈরি করা হয়। অথচ ট্যানারি বর্জ্য খুবই কম তার চেয়ে অনেক বেশি পোল্ট্রি খামার। তবে দু-একটা খামারে এটা হতে পারে। আবার অনেকে বলেন ভারত থেকে কাছিমের ডিম আসে, যা অবাস্তব। আমার কথা হলো, ভারত থেকে কেন ডিম-মাংস আমদানি হবে? ব্যবসায়ীরা দেখেন কিভাবে রপ্তানি করা যায়, এর সব সুবিধা আমরা দিতে প্রস্তুত।

তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো’র পর্দা নামবে আগামী ৯ মার্চ। ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশনের (বাংলাদেশ) সভাপতি শামসুল আরেফিন খালেদের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ড. এবিএম আব্দুল্লাহ।

বক্তব্য রাখেন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক হীরেশ রঞ্জন ভৌমিক, প্রাণিসম্পদ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক নাথু রাম সরকার, ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক নিন ইয়াং, বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রি কাউন্সিলের সভাপতি মশিউর রহমান।

বাংলাদেশ সময়: ১২০১ ঘণ্টা, মার্চ ০৭, ২০১৯
ইএআর/এমজেএফ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14