ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৬ মে ২০১৯
bangla news

সূচক উত্থানে পুঁজিবাজারে সপ্তাহ পার

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১৪ ৩:৪২:১১ পিএম
ডিএসই ও সিএসই লোগো

ডিএসই ও সিএসই লোগো

ঢাকা: সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন হয়েছে।

এদিন বিমা ও বস্ত্র খাতের শেয়ারের দাম বাড়ার পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম ও লেনদেন। একই অবস্থায় লেনদেন হয়েছে দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই)।
 
বৃহস্পতিবার সূচক বাড়ার মধ্য দিয়ে দিনের লেনদেন শুরু হয়ে চলে সকাল পৌনে ১১টা পর্যন্ত। এরপর শেয়ার বিক্রির চাপে শুরু হয় সূচক পতন। যা অব্যাহত ছিলো দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। তবে বিমা ও বস্ত্র খাতের শেয়ার বাড়ায়, দিনের বাকি সময়ের লেনদেন হয় সূচকের ওঠা-নামার প্রবণতায়।

দিন শেষে ডিএসইতে সূচক বেড়েছে ১ পয়েন্ট। আর সিএসইতে বেড়েছে ২ পয়েন্ট।

ফলে গত রোববার, সোমবার ও মঙ্গলবার তিনদিন সূচক পতনের পর বুধবার ও বৃহস্পতিবার দু’দিন সূচক বাড়লো।
 
বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, এদিন বিমা খাতের ৪৭টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৪৪টির, কমেছে দু’টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে একটি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

অপরদিকে বস্ত্র খাতে তালিকাভুক্ত ৫৩টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৩৭টি কোম্পানির শেয়ারের, কমেছে ১৪টির আর অপরিবর্তিত ছিলো দু’টি কোম্পানির শেয়ারের।

ডিএসইর তথ্য মতে, বৃহস্পতিবার ডিএসইতে ২৫ কোটি ২৫ লাখ ৫৬৫টি শেয়ারের হাত বদল হয়েছে। এতে লেনদেন হয়েছে ৯৩২ কোটি ৩৭ লাখ ৮ হাজার টাকার। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৭১২ কোটি ৬৪ লাখ ৫৩ হাজার টাকার। তার আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৯০১ কোটি ৩৯ লাখ ৪ হাজার টাকার।
 
এদিন তিন সূচকে পথ চলা ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১ দশমিক ৯৭ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৭৫০ পয়েন্টে অবস্থান নেয়। অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএক্স ইনডেক্স দশমিক ১২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩১১ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ ইনডেক্স ৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯৯৯ পয়েন্টে।
 
এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানির শেয়ারের মধ্যে দাম বেড়েছে ১৬০টির, কমেছে ১৪৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৯টির।
 
সিএসইতে সার্বিক সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে ১৭ হাজার ৬০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এ বাজারে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ১৩৮টির, কমেছে ১০৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।
 
সিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৪ কোটি ১২ লাখ ৬০ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ২৭ কোটি ২১ লাখ ৫১ হাজার টাকার। তার আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ২৯ কোটি ৮১ লাখ ৫৮ হাজার ৩৭০ টাকার।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯
এমএফআই/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   শেয়ার বাজার
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-02-14 15:42:11