ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪২৬, ২৪ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

যেকোনো ব্র্যান্ডের এসি বদলে নতুন এসি দিচ্ছে ওয়ালটন 

বিজনেস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১০ ১০:০৫:৫২ পিএম
ওয়ালটন ব্র্যান্ডের এসি

ওয়ালটন ব্র্যান্ডের এসি

ঢাকা: দেশব্যাপী ‘এসি এক্সচেঞ্জ অফার’ শুরু করেছে বাংলাদেশের ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটন। এর আওতায় যেকোনো ব্র্র্যান্ডের ব্যবহৃত এসি বদলে নতুন এসি দিচ্ছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ খ্যাত কোম্পানিটি।

কোম্পানি সূত্রে জানা যায়, ওয়ালটন প্লাজা ও শোরুমে পুরনো এসি জমা দিয়ে গ্রাহকরা ওয়ালটনের যেকোনো মডেলের নতুন এসি কিনতে পারবেন। পুরনো এসি জমা দিলে গ্রাহক তার পছন্দকৃত নতুন ওয়ালটন এসির মূল্য থেকে ২৫ শতাংশ ছাড় পাবেন। সারাদেশে ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া অফারটি চলবে ৩১ মার্চ পর্যন্ত।

এ সুবিধার পাশাপাশি আবাসিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে ইনভার্টার প্রযুক্তির এসির কম্প্রেসারে ১০ বছরের গ্যারান্টি সুবিধা ঘোষণা করেছে ওয়ালটন। আগে এই সুবিধাটি ছিলো ৮ বছরের। চলতি মাসের ১০ তারিখ থেকে ইনভার্টার এসি ক্রয়ের ক্ষেত্রে কম্প্রেসারের বর্ধিত এ গ্যারান্টি সুবিধা পাবেন ক্রেতারা। কর্তৃপক্ষ জানায়, গ্রাহকদের বাড়তি সুবিধা দিতেই এসব উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক উদয় হাকিম বলেন, গ্রাহকদের হাতে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির পণ্য তুলে দিতে উৎপাদন প্রক্রিয়ায় বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করছে ওয়ালটন। এরই ধারাবাহিকতায় ইন্টিলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি বাজারে এনেছে তারা। এসব এসিতে ব্যবহৃত কম্প্রেসারের উচ্চ গুণগতমান ও দীর্ঘস্থায়ীত্বের বিষয়ে শতভাগ আস্থা রয়েছে বলেই গ্যারান্টির মেয়াদ বাড়িয়ে ১০ বছর করা হয়েছে। এক্সচেঞ্জ অফার সম্পর্কে তিনি বলেন, দেশীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেশবাসীকে সেবা করার এটি একটি সুযোগ।
   
ওয়ালটন এসি’র চিফ অপারেটিং অফিসার প্রকৌশলী ইসহাক রনি জানান, কম্প্রেসারের বড় ধরনের সমস্যা হলে রিপ্লেসমেন্ট বা নতুন কম্প্রেসার যুক্ত করতে হয়। কিন্তু ওয়ালটনের ক্ষেত্রে সাধারণত এ ধরনের সমস্যা হয় না। কম্প্রেসারের অ্যাকুরেসি এবং কুলিং সিস্টেমে বেশি পারফেকশন এনেছেন তারা। কম্প্রেসারে বিল্ট-ইন অটোমেটিক ভোল্টেজ প্রোটেকশন সিস্টেম থাকায় বিদ্যুৎ প্রবাহের বিচ্যুতি বা তারতম্যে ওয়ালটন কম্প্রেসারের তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।

সূত্রমতে, এ বছর স্থানীয় বাজারে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ১৮ মডেলের এসি ছেড়েছে ওয়ালটন। এর মধ্যে রয়েছে ১ থেকে ২ টনের ১৪ মডেলের স্পিল্ট এসি, ৪ ও ৫ টনের সিলিং ও ক্যাসেট টাইপ এসি। ৭৮ হাজার টাকা থেকে শুরু করে সর্বনিম্ন ৩৫ হাজার ৫০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে স্পিল্ট এসি। এছাড়া ৫ টন এসি পাওয়া যাচ্ছে ১ লাখ ৪১ হাজার টাকা থেকে ১ লাখ ৫৯ হাজার টাকায়।

ওয়ালটনের এসিতে সংযোজন করা হয়েছে আয়োনাইজার প্রযুক্তি। যা রুমকে ঠাণ্ডা করার পাশাপাশি রুমের বাতাসকে ধুলো-ময়লা ও ব্যাকটেরিয়ামুক্ত করবে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, উচ্চ গুণগতমান ও সঠিক বিটিইউ’র নিশ্চয়তা, বৈচিত্র্যময় ডিজাইন, সাশ্রয়ী মূল্য, ৬ মাসের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি ও দেশব্যাপী বিস্তৃত সেলস ও সার্ভিস নেটওয়ার্ক থাকায় স্থানীয় বাজারে গ্রাহকপ্রিয়তার শীর্ষে ওয়ালটন এসি। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে মেইড ইন বাংলাদেশ ট্যাগযুক্ত ওয়ালটন পণ্য রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।

বাংলাদেশ সময়: ২২০২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯
পিআর/জেডএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db