ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

খুলনায় সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারীদের সম্মাননা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৮
খুলনায় সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারীদের সম্মাননা খুলনায় সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারীদের সম্মাননা-ছবি-বাংলানিউজ

খুলনা: জাতীয় ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ উপলক্ষে খুলনায় খাতভিত্তিক সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী ১০টি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে। 

সোমবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে খুলনা কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের আয়োজনে হোটেল টাইগার গার্ডেন মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (কর, তথ্য ব্যবস্থাপনা ও সেবা) মো. আলমগীর হোসেন।

অনুষ্ঠানে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে উৎপাদন, সেবা ও ব্যবসা এই তিনটি ক্যাটাগরিতে সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী ১০টি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।  

সম্মাননা পেয়েছে উৎপাদনে খুলনার দৌলতপুরের মেসার্স এস বি ফুড প্রোডাক্টস, বাগেরহাটের মোল্লাহাটের আকিজ বিড়ি ফ্যাক্টরি লিমিটেড, সাতক্ষীরার রনি প্লাইউড ইন্ডাস্ট্রিজ এবং শরীয়তপুরের মনিকা ক্যামিক্যাল কনেশন; সেবায় খুলনার ক্রিস্টিয়ান সার্ভিস সোসাইটি, বাগেরহাটের মোংলার হোটেল পশুর এবং সাতক্ষীরার মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্ট; ব্যবসা পর্যায়ে খুলনার দৌলতপুর সেফ এন সেইভ, বাগেরহাটের ওয়ালটন প্লাজা ও সাতক্ষীরার পলাশপোল ওয়ালটন প্লাজা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মো. আলমগীর হোসেন বলেন, উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় বিকশিত বাংলাদেশ বাস্তবায়নের ভিত রচিত হয়েছে। ব্যবসায়ীরা এ অগ্রযাত্রার ইতিবাচক দূত। ক্রেতার কাছ থেকে আহরিত কর রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়ে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বাস্তবায়নের চালিকাশক্তি হয়ে কাজ করছেন তারা। ভিক্ষুকের জাতি নয়, সম্মানিত জাতি হয়ে বাঁচতে চাই আমরা। সময়ের সঙ্গে দেশ ও সরকারের অর্থনৈতিক সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে।  

তিনি আরও বলেন, কর আহরণে অস্বচ্ছতা দূরীকরণে অনলাইন ব্যবস্থাপনার দিকে ধাবিত হয়েছে রাজস্ব বোর্ড। করদাতা ও আদায়কারীর মধ্যে ব্যক্তিগত যোগাযোগ হ্রাস পেয়েছে। এখন আহরিত ভ্যাটের শতভাগ সরকারি কোষাগারে জমা হওয়া নিশ্চিত করতে নিরন্তর কাজ চলছে। ভ্যাট আইন সময়ের সঙ্গে আরও বাস্তবমুখী করা হবে। উন্নয়নের অক্সিজেন ভ্যাট বা রাজস্বের ব্যবস্থাপনায় কোনো অনিয়মকে প্রশ্রয় দেওয়া হবে না।  

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার, কর আপিল অঞ্চল-খুলনার কর কমিশনার প্রশান্ত কুমার রায়, মোংলা কাস্টম হাউসের কমিশনার সুরেশ চন্দ্র বিশ্বাস, ডেপুটি পুলিশ কমিশনার সাইফুল হক এবং খুলনা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সহ-সভাপতি মোস্তফা জেসান ভুট্ট। এতে সভাপতিত্ব করেন কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার মো. মোস্তবা আলী। স্বাগত জানান বাগেরহাটের ডেপুটি কর কমিশনার সুমন দাশ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অতিরিক্ত কমিশনার মুহাম্মদ রাশেদুল আলম।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৮
এমআরএম/আরআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।