[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ কার্তিক ১৪২৫, ২৩ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

ব্যাংক-বিমায় ভর করে পুঁজিবাজারে উত্থান

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৯-১৮ ৪:২৬:২৬ পিএম
ডিএসই-সিএসই লোগো

ডিএসই-সিএসই লোগো

ঢাকা: টানা চার কার্যদিবস দরপতনের পর সূচকের উত্থানের মধ্য দিয়ে সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেন শেষ হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দিনভর সূচক ওঠানামা শেষে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক বেড়েছে ২৮ পয়েন্ট। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বেড়েছে ৩৯ পয়েন্ট।

সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে লেনদেন ও বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম। তবে তার আগে গত বুধ, বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার টানা চারদিন দরপতন হয়েছিলো।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংক, বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ বেশিরভাগ খাতের কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়ায় পুঁজিবাজারে উত্থান হয়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, মঙ্গলবার ব্যাংক খাতের ত্রিশটি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ২০টি, কমেছে ৫টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৫টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। বিমা খাতের তালিকাভুক্ত ৪৭টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৪৫টি, কমেছে ২টির, অন্যদিকে আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের ২৩টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৬টি, কমেছে ৬টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। তবে তার আগের টানা চারদিন এসব খাতের শেয়ারের দাম কমেছে। ফলে বাজারেও দরপতন হয়েছে।

ডিএসইর তথ্য মতে, মঙ্গলবার এ বাজারে ১৭ কোটি ৯৫ লাখ ৭০ হাজার ৭১২টি শেয়ারের হাতবদল হয়েছে। এতে লেনদেন হয়েছে ৭৩১ কোটি ৬৮ লাখ ৯৩ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৬৯৬ কোটি ৯৫ লাখ ১১ হাজার টাকার। তার আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৮০৪ কোটি ৩৩ লাখ ১৬ হাজার টাকার।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৮ দশমিক ৭৯ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৪৭২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস ইনডেক্স ১ দশমিক ৭০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ২৬২ পয়েন্টে। আর ডিএস-৩০ ইনডেক্স ২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯০৫ পয়েন্টে।

ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৬৬টির, কমেছে ১২৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক ৩৯ পয়েন্ট বেড়ে ১০ হাজার ১৯৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ১২১টির, কমেছে ১১০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টি কোম্পানির শেয়ার।

লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৭ কোটি ৮২ লাখ ৫৩ হাজার ৬৩৭ টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ২৪ কোটি ২৯ লাখ ২৫ হাজার ৮৫৯ টাকা। তার আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ২৯ কোটি ১৬ লাখ ৪৭ হাজার ৫০০ টাকার।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৮
এমএফআই/এমজেএফ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache