ঢাকা, বুধবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৪ জিলহজ ১৪৪১

কৃষি

কৃষির ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তাদের আর্থিক সহায়তার আহ্বান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০১-১২ ০৩:৫১:৩৬ পিএম
কৃষির ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তাদের আর্থিক সহায়তার আহ্বান সেমিনারে অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: কৃষি খাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের আর্থিক সহায়তার লক্ষ্যে ইক্যুইটি ইনভেস্টমেন্ট সুবিধা বাড়ানোর আহবান জানিয়েছেন বক্তারা।

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) ডিসিসিআই অডিটোরিয়ামে আয়োজিত ‘অপারচুনিটিজ অ্যান্ড চ্যালেঞ্জেস অব ইক্যুইটি ইনভেস্টমেন্ট ইন অ্যাগ্রো এসএমই’স ফর প্রাইভেট সেক্টর গ্রোথ ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তৃতাকালে বক্তারা এ আহ্বান জানান। অ্যাগ্রিবিজনেস বুস্টার’র সহায়তায় যৌথভাবে এ সেমিনারের আয়োজন করে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ এবং ইউএসএআইডি অ্যাগ্রিকালচারাল ভ্যালু চেইনস প্রজেক্ট।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডিসিসিআই’র সহ-সভাপতি হোসেন এ সিকদার। এতে ডিসিসিআই’র প্রাক্তন সহ-সভাপতি শোয়েব চৌধুরী স্বাগত বক্তব্য দেন।  

হোসেন এ সিকদার বলেন, দেশের কৃষি খাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা প্রাকৃতিক দুর্যোগের মত নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত এবং এ খাতের উদ্যোক্তাদের সময়মত ও প্রয়োজনীয় আর্থিক সহায়তা দেওয়ার বিষয়টি এখনও নিশ্চিত সম্ভব হয়নি।  

তিনি বলেন, প্রথাগত ঋণ সহায়তা প্রাপ্তি নিশ্চিত না করার ফলে দেশের কৃষিখাত এখনও কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি।

কৃষিখাতের উদ্যোক্তাদের নগদ লেনদেনের মাধ্যমে কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য ক্রয় করে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করতে হয়, ফলে উদ্যোক্তাদের আর্থিক সহায়তার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলেও জানান হোসেন এ সিকদার।

ডিসিসিআই সহ-সভাপতি কৃষিখাতের উদ্যোক্তাদের বিকাশের লক্ষ্যে ‘ভেঞ্চার ক্যাপিটাল’ ও ‘প্রাইভেট ইক্যুয়েটি ফান্ড’ গঠনের আহ্বানও জানান। তিনি মনে করেন, এর মাধ্যমে উদ্যোক্তারা পণ্য আহরণ, উৎপাদন ও বাজার ব্যবস্থাপনা সচল রাখতে সক্ষম হবেন।

ডিসিসিআই’র সমন্বয়কারী পরিচালক ইমরান আহমেদ বলেন, কৃষিসহ অন্যান্য খাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল’র মাধ্যমে বেসরকারিখাতকে এগিয়ে আসতে হবে।  

ইন্টারচার্চ অর্গানাইজেশন ফর ডেভেলপমেন্ট কোঅপারেশন (আইসিসিও) বাংলাদেশের কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ টিসা সেমেলজার বলেন, দেশের কৃষি খাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের চাহিদা মাফিক আর্থিক সহায়তা নিশ্চিত করা হলে এ খাতের উন্নয়নের পাশাপাশি বাংলাদেশের অর্থনীতির অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে কৃষি খাত আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।    

অ্যাগ্রিবিজনেস বুস্টার বাংলাদেশ’র লিড প্রতিনিধি নাবা নাশিত তারেক সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, অ্যাগ্রিবিজনেস বুস্টার বাংলাদেশ এখানকার উদীয়মান কৃষি উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন মেয়াদে ইকুয়েটি ইনভেস্টমেন্ট ও ভেঞ্চার ক্যাপিটালের মাধ্যমে আর্থিক সহায়তা দিতে আগ্রহী।  

নাশিত তারেক বলেন, দেশের গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, দারিদ্র্য বিমোচন এবং খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে একটি সফল কৃষি ব্যবস্থপনা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম।  

মুক্ত আলোচনায় বাংলাদেশ অ্যাগ্রো প্রসেসরস্ অ্যাসোসিয়েশন’র সভাপতি ফকরুল ইসলাম মুন্সী, ঢাকা চেম্বারের মহাসচিব এএইচএম রেজাউল কবির, ক্যাটালিস্ট এবং বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলপমেন্ট অথিউরিটির (বিডা) প্রতিনিধিরা অংশ নেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০১৭
ওএফ/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa