ঢাকা, বুধবার, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

কৃষি

গোলাপগঞ্জ জুড়ে শিমের সবুজ শামিয়ানা

নাসির উদ্দিন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৪৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারী ১২, ২০১৭
গোলাপগঞ্জ জুড়ে শিমের সবুজ শামিয়ানা সিলেটের গোলাপগঞ্জে নয়নজুড়ানো শিম ক্ষেত-ছবি: আবু বকর

সিলেট: ধানী জমি কিংবা বাড়ির আঙিনা; এক চিলতেও খালি পড়ে নেই। যেদিকে দু’চোখ যায় সেদিকেই সবুজ শিম গাছের শামিয়ানা টানানো। তাতে দোল খাচ্ছে থোকায় থোকায় শিম।

সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের ধানী জমিতে দেখা মেলে চোখ জুড়ানো শিম চাষের মুগ্ধতা ছড়ানো সবুজ সমারোহ। এ যেন শিমের গ্রাম।

প্রতিবারের মতো এবারও সিলেটের প্রবাসী অধ্যুষিত গোলাপগঞ্জ উপজেলার প্রতিটি গ্রামে হয়েছে শিমের বাম্পার ফলন।
 ধানী জমিতে দেখা মেলে চোখ জুড়ানো শিম চাষ
উপজেলার রাখালগঞ্জ ও লক্ষণাবন্দ, এলাহীগঞ্জ, দড়া, নিমাধল, দারাবহর এলাকার মাঠ পরিপূর্ণ শিমের বাগানে। দৃষ্টি সীমানা পেরিয়েও মাচা ভর্তি শিমের বাগান লক্ষ্য করা যায়।

শুধু মাঠেই নয়, সড়কের পাশে ও বাড়ির আঙিনা জুড়ে শিমের মাচা রয়েছে। আর তাতে ধরেছে থোকায় থোকায় শিম। শুধু কৃষক নয়, দেখে পথিকেরও মন জুড়ায়। পোক্ত হয়ে ওঠা শিম বিক্রি করতে কৃষকরা ক্লান্তিহীন সময় পার করছেন। বাজারজাত করতে মাচা থেকে তারা আহরণ করছেন শিম।
 স্তূপাকারে রাখা শিম পাইকারদের কাছে বিক্রি করছেন
আহরণের পর ঠেলা গাড়ি ভর্তি শিম কৃষকরা নিয়ে যা‍চ্ছেন স্থানীয় পাইকারি হাটে। সেখানে স্তূপাকারে রাখা শিম পাইকারদের কাছে বিক্রি করছেন তারা। পাইকাররা তা কিনে বস্তাভর্তি করে ট্রাকযোগে নিয়ে যাচ্ছেন শহরের বাজারে। কেউবা অধিক দামে বিক্রির জন্য অপেক্ষার প্রহর গুণছেন। সিলেটের গোলাপগঞ্জের স্থানীয় বাজারগুলোতে প্রতিদিন সকাল-বিকেলে এভাবেই জমে ওঠে শিমের বাজার।
প্রতিদিন সকাল-বিকেলে এভাবেই জমে ওঠে শিমের বাজার
স্থানীয় ঝাপা গ্রামের শিম চাষি সুমন মিয়া বাংলানিউজকে জানান, সিলেটের মধ্যে শিম চাষে বিখ্যাত তাদের এই অঞ্চল। ধান চাষ থেকে শিম চাষে লাভ বেশি। তাই এই মৌসুমে ধানী জমিতেও তারা শিম চাষ করেছেন। সুমন মিয়া এ বছর তিন বিঘা জমিতে শিম চাষ করেছেন।

পাইকাররা প্রতি কেজি শিম ১০ টাকা করে কিনলেও শহরে, নগরে-বন্দরে শিমের কেজি ৪০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
 স্তূপাকারে রাখা শিম পাইকারদের কাছে বিক্রি করছেন
পাশেই কর্মব্যস্ত সুমন মিয়ার চাচা খালিক মিয়া জানালেন, তিনি বিদেশে (মধ্যপ্রাচ্যে) ছিলেন একযুগ। কিছুই করতে পারেননি। তিন বছর হয় দেশে এসেছেন। এরপর থেকে স্বজনদের পরামর্শে শিম চাষ করেন। প্রতি মৌসুমে এখন শিম চাষ করে লাখ লাখ টাকা আয় করেন।
সিলেটের গোলাপগঞ্জে শিমের হাট
সিলেট থেকে গোলাপগঞ্জে শিম কিনতে যাওয়া ফজলুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, প্রতি মৌসুমে তারা গোলাপগঞ্জের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে সিম কিনে সিলেট ট্রেড সেন্টারের কাঁচা বাজারে বিক্রি করেন।

আফতাব আলী নামে এক স্থানীয় প্রবীণ জানান, গ্রামে যার পা ফেলার জায়গা আছে, সেও শিম খেত করে। কৃষিবান্ধব তাদের এই অঞ্চল শিমের জন্য বিখ্যাত।
 স্তূপাকারে রাখা শিম পাইকারদের কাছে বিক্রি করছেন
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সিলেটের উপ পরিচালক কৃষ্ণ চন্দ্র হুড় বাংলানিউজকে বলেন, এবার সিলেট বিভাগে ৭ হাজার ২৯৭ হেক্টর জমিতে শিমের চাষ হয়েছে। এরমধ্যে সর্বাধিক শিমের চাষ সিলেটে ৩ হাজার ৩২৭ হেক্টরে। আর সর্বনিম্ন মৌলভীবাজারে ৭৮০ হেক্টর। এছাড়া হবিগঞ্জ ১ হাজার ১৪০ হেক্টর এবং সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে শিমের চাষ হয়েছে।

সিলেটে শিম চাষে গোলাপগঞ্জ উপজেলা এগিয়ে বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১০৩৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০১৭
এনইউ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa