ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

অর্থনীতি-ব্যবসা

ইন্দো-বাংলা অটোমোটিভ শো

‘মেড ইন বাংলাদেশ’ বেশি দূরে নয়

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮০৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৬
‘মেড ইন বাংলাদেশ’ বেশি দূরে নয়

বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি আবদুল মাতলুব আহম‍াদ বলেছেন, আর আমদানি নয়, বাংলাদেশের এখন সময় এসেছে গাড়ি নির্মাণ শিল্প কারখানা গড়ে তোলার। ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ থেকে আমরা বেশি দূরে নেই।

ঢাকা: বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি আবদুল মাতলুব আহম‍াদ বলেছেন, আর আমদানি নয়, বাংলাদেশের এখন সময় এসেছে গাড়ি নির্মাণ শিল্প কারখানা গড়ে তোলার। ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ থেকে আমরা বেশি দূরে নেই।

বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ইন্দো-বাংলা অটোমোটিভ শো-২০১৭ উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। আগামী বছরের ২-৪ ফেব্রুয়ারি ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরায় (আইসিসি,বি) তিন দিনব্যাপী অটোমোটিভ শো’র আয়োজন করা হবে।
ইন্ডিয়ান হাই কমিশন ও সোসাইটি অব ইন্ডিয়ান অটোমোবাইল ম্যানুফ্যাকচার্স (এসআইএএম) যৌথভাবে এর আয়োজন করছে।

ভারতের পক্ষ থেকে এতে অংশ নেবে গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অশোক লেল্যান্ড, বাদার্স অটোজ, হিরো মোটরকার, হুনডা মোটরসাইকেল, মহেন্দ্র অ্যান্ড মহেন্দ্র, মার‍ুতি-সুজুকি, পিয়াজিও, রানার অটো মোবাইলস, টাটা মোটরস, টিভিএস মোটরস, ইয়ামাহা।

বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অংশ নেবে আফতাব অটোমোবাইলস, হুনডা-বাংলাদেশ, নিলয় মোটরস, নিটোল-টাটা মোটরস, রানফন মোটরস, ৠাংস মোটরস, রানার মোটর, টিভিএস মোটরস বাংলাদেশ, উত্তরা মোটরসসহ আরও অনেক প্রতিষ্ঠান।

রাজধানী বিভিন্ন এলাকা থেকে আগামী ৩ ও ৪ ফেব্রুয়ারি দর্শনার্থীদের গাড়ি করে বিনা খরচে আইসিসি,বি-তে নিয়ে যাওয়া হবে। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত শো সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

আবদুল মাতলুব’র সঙ্গে একমত পোষণ করে বাংলাদেশ মোটরসাইকেল অ্যাসাম্বেলার অ্যান্ড ম্যানুফেকচারার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মতিউর রহমান বলেন, বাইরে মোটরসাইকেল আমদানি করায় দাম অনেক বেড়ে যায়। দু’এক বছরের মধ্যে আমরা শিল্পকারখানা গড়ে তুলবো- এতে দেশের মানুষ কম দামে বাইক কেনার সুযোগ পাবেন।

এসআইএএম’র সভাপতি সৌবত সেন এক পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, যেসব দেশে ভারত ট্রাক রফতানি করে- সে তালিকায় বাংলাদেশ প্রথমে রয়েছে। মোটরসাইকেল রফতানি ৪ নম্বর, বাস রফতানিতে ১০ নম্বর, তবে প্রাইভেটকার রফতানিতে ২৩ নম্বরে রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মোটরসাইকেল অ্যাসাম্বেলার অ্যান্ড ম্যানুফেকচারার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মতিউর রহমান, বাংলাদেশ অটোমোবাইল অ্যাসাম্বেলার অ্যান্ড ম্যানুফেকচারার অ্যাসোসিয়েশনের (বিএএমএ) সভাপতি হাফিজুর রহমান খান, আইবিবিপিআই’র প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর বিন আলম প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৬
কেজেড/এটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa