bangla news
সরবরাহ বেশি, দামে খুশি ক্রেতারা

আমের রাজধানীতে লিচুর রাজত্ব!

শরীফ সুমন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬-০৫-২৮ ৯:৩০:২৬ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লিচুময় হয়ে উঠেছে আমের রাজধানী খ্যাত রাজশাহী। বাসস্ট্যান্ডে লিচু, সিঅ্যান্ডজি চালিত অটোরিকশা স্ট্যান্ডে লিচু, ফুটপাতে লিচু, অফিস-আদালতের বারান্দায়ও লিচু। বাজারে তো বটেই।

রাজশাহী: লিচুময় হয়ে উঠেছে আমের রাজধানী খ্যাত রাজশাহী। বাসস্ট্যান্ডে লিচু, সিঅ্যান্ডজি চালিত অটোরিকশা স্ট্যান্ডে লিচু, ফুটপাতে লিচু, অফিস-আদালতের বারান্দায়ও লিচু। বাজারে তো বটেই।  

পদ্মার তীর ঘেঁষে গড়ে ওঠা ৯৬.৭২ বর্গকিলোমিটারের এই শহরে এখন লিচু আর ‍লিচু। পথে-প্রান্তরে চোখ মেলতেই ভেসে উঠছে বাহারি রঙ ও জাতের লিচু। হাত বাড়ালেই মিলছে লিচুর থোকা।

জ্যৈষ্ঠের শুরু থেকেই এবার রাজশাহীর বাজারে রাজত্ব করছে মৌসুমি এই ফল। অল্প সময় গাছে ও বাজারে থাকে বলে বিজ্ঞানীরা লিচুকে বলেন অতিথি ফল। তবে এরই মধ্যে বাজারে আম উঠলেও বিদায় নেওয়ার নাম নেই অতিথি ফলের। দামও কম। তাই লিচুর স্বাদ চাখতে পারছেন সাধারণ ক্রেতারাও।  

রাজশাহীর পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, গ্রীষ্মকালীন ফল লিচু প্রচুর পরিমাণ আমদানির কারণে এবার দাম ও লাভের অঙ্ক দুটোই কমে গেছে তাদের। তবে এতে ক্রেতাদের মুখে হাসি ফুটেছে।

রাজশাহীর সাহেববাজার এলাকার ফল ব্যবসায়ী শাহীন শেখ বলেন, প্রতিবার আম ওঠার প্রথম সপ্তাহেই লিচু হাওয়া হয়ে যায়। য‍ৎসামান্য লিচু পাওয়া গেলেও দাম দ্বিগুণ চড়ে যায়। কিন্তু এবার বাজারের চিত্র উল্টো। পথে-ঘাটে ভ্যানের ওপর বোম্বে জাতের লিচু পাওয়া যাচ্ছে। দাম হাতের নাগালেই।

উৎপাদন বেশি হওয়ায় এবার প্রতি হাজার লিচু পাইকারি বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার টাকায়। আর বাজারে ওঠার পর ১শ’ লিচু খুচরা বিক্রি হচ্ছে আকারভেদে ২শ’ ২০ টাকা থেকে আড়াইশ’ টাকায়। কিন্তু আমদানি বেশি হওয়ায় লিচুর দাম কিছুটা কম হলেও সীমিত লাভের মুখ দেখতে পাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

শিরোইল বাসস্ট্যান্ডে লিচু কেনার সময় শালবাগান এলাকার মঈনুদ্দিন আহমেদ জানান, দীর্ঘ ৩/৪ বছর পর রাজশাহীর বাজারে লিচুর দাম এতো কম! প্রথম দিকে ১শ’ লিচু ৩৮০ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হলেও বর্তমানে ২শ’ থেকে আড়াইশ’ টাকার মধ্যেই সেই লিচু পাওয়া যাচ্ছে।

স্বাদ ও গুণেও সেরা। তাই যেখানে পুরো মৌসুমে তিনি দুই থেকে তিনবার লিচু কিনতেন, সেখানে এবার সপ্তাহেই ৩/৪ দিন কিনছেন। লিচুর স্বাদে এবার তৃপ্তি মিটছে বলেও জানান এই ক্রেতা।   

এদিকে বাম্পার ফলন হওয়ায় বাজারে এখন প্রচুর লিচুর সমারোহ। কিন্তু দাম কমলেও এসব লিচু আগের মতো আর দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠাতে পারছেন না স্বজনেরা। কারণ, কুরিয়ার সার্ভিসগুলো আগের মতো লিচুর ঝুড়ি আর বুকিং নিতে চাচ্ছেন না। বিশেষ তদ্বির করেই পাঠাতে হচ্ছে লিচু।

রাজশাহীর শালবাগানের সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের সহকারী শাখা ব্যবস্থাপক ইকবাল হোসেন জানান, এখন আমের ঝুড়ি বেশি লোড হচ্ছে তাদের গাড়িতে। এ অবস্থায় লিচুর ঝুড়ি নিচে পড়ে যাচ্ছে অনেক ক্ষেত্রেই। ফলে নরম ফলগুলো আমের ঝুড়ির চাপায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তাই তারা এর ঝুঁকি নিতে চাচ্ছেন না। কেউ নিজ দায়িত্বে লিচু পাঠাতে চাইলেই কেবল তা বুকিং নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

মহানগরী ঘুরে দেখা গেছে, সাহেববাজার ও এর প্রতিটি রাস্তা, ফুটপাত, নিউমার্কেট, লক্ষ্মীপুর, শালবাগান, হড়গ্রাম বাজার, কোর্ট স্টেশন বাজার, উপশহর, বিনোদপুর, নওদাপাড়া, তেরখাদিয়াসহ পাড়া-মহল্লার গলিপথেও রিকশা ভ্যানে ডালি বা ঢাকিতে পসরা সাজিয়ে বিক্রি হচ্ছে লিচু।

এর মধ্যে উন্নতমানের জাত হিসেবে পরিচিত বোম্বাই, মাদ্রাজি, কাদমি, মোজাফফরপুরি, বেদানা, কালীবাড়ি, মঙ্গলবাড়ি, চায়না-৩, বারি-১, বারি-২ ও বারি-৩ জাতের লিচুই বেশি। এগুলো যেমন রসালো, খেতেও তেমন সুস্বাদু। এছাড়া এসব লিচুর উৎপাদনও বেশি, আকারও বেশ বড়।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক দেব দুলাল ঢালি বলেন, এ বছর রাজশাহীতে লিচু আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩৯৫ হেক্টর জমিতে। যার গড় ফলন প্রতি হেক্টরে ৮ মেট্রিক টন। কিন্তু এবারের আবহাওয়া কিছুটা লিচু উপযোগী হওয়ায় ফলন বেশি হয়েছে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৯ ঘণ্টা, মে ২৮, ২০১৬
এসএস/এএসআর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2016-05-28 09:30:26