ঢাকা, রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

ন্যুনতম মজুরি ঘোষণার আগে আশুলিয়ায় উত্তেজনা: ২ কারখানায় কর্মবিরতি, ১টিতে ছুটি

জাহিদুর রহমান | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩৩০ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০১০

সাভার: পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বৃহস্পতিবার বিকেলে তৈরি পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের জন্য নূন্যতম মজুরি ঘোষণাকে সামনে রেখে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে ।

ন্যুনতম মজুরি ৫ হাজার টাকা নির্ধারণের দাবিতে দু’টি তৈরি কারখানার শ্রমিকরা কাজ বন্ধ রেখে বিােভ করেছে।

এর মধ্যে একটি কারখানায় ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপ।

সরকার গঠিত মজুরি বোর্ড ৮০ শতাংশ বাড়িয়ে ন্যুনতম মজুরি তিন হাজার টাকা নির্ধারণ করেছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে সচিবালয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন মজুরি-কাঠামো ঘোষণা করার কথা রয়েছে।

তবে সরকারের এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে রাজি নয় তৈরি পোশাক শ্রমিকদের বিভিন্ন সংগঠন।

নূন্যতম মজুরি  ৫ হাজার টাকা ঘোষণাসহ অন্যান্য ভাতা বহাল রাখার দাবিতে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার এএম ডিজাইন ও নিশ্চিন্তপুর এলাকার নিউ এজ লিমিটেড নামের একটি কারখানার  প্রায় চার হাজার শ্রমিক সকালে কর্মবিরতি করেন।

পুলিশ ও প্রত্যদর্শীরা জানায়, আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার এ.এম ডিজাইন কারখানার দুই হাজার শ্রমিক সকালে কাজে যোগদানের পরই বিভিন্ন দাবিতে বিােভ শুরু করেন। এক পর্যায়ে তারা কারখানায় সকল ইউনিটের কাজ বন্ধ করে দেন।

নূন্যতম মজুরি হিসেবে ৩ হাজার টাকার সরকারি সিদ্ধান্ত প্রত্যাখান করে তারা ৫ হাজার টাকা মজুরি নির্ধারণ, অন্যান্য ভাতা বহাল রাখা, অকারণে ছাঁটাই বন্ধসহ বিভিন্ন দাবিতে বিােভ করতে থাকেন।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁেছ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আশুলিয়া থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে জানান, অহেতুক বাড়াবাড়ি কিংবা ধ্বংসাত্মক কাজে লিপ্ত হলে দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হবে এমন হুমকি দেওয়ার পর শ্রমিকরা শান্ত হন।

এ সময় পুলিশ স্বাধীন বাংলা গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন আশুলিয়া অঞ্চলের সভাপতি কামরানকে দিয়ে শ্রমিকদের কাজে ফিরে যাবার আহবান জানালে প্রায় তিন ঘন্টা পর শ্রমিকরা কাজে যোগ দেন।

অন্যদিকে অভিন্ন দাবিতে নিশ্চিন্তপুর এলাকার নিউএজ নামের তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা সকাল থেকে কর্মবিরতি শুরু করেন। কারখানার কর্মকর্তারা শ্রমিকদের কাজে ফিরে যাবার আহবান জানালেও শেষ পর্যন্ত তারা কাজে ফিরে যাননি।

পরে দুপুরে কারখানায় ছুটি ঘোষনা করে কর্তৃপ।

আশুলিয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক বিল্লাল হোসেন বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে জানান, ছুটি ঘোষণার পর কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি, শ্রমিকরা বাড়ি ফিরে গেছে।

এদিকে নতুন মজুরি ঘোষণাকে সামনে রেখে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চল।

নূন্যতম মজরি ঘোষণাকে সামনে রেখে পুলিশ, আমর্ড পুলিশ ও র‌্যাবের পর্যাপ্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে শিল্পাঞ্চলে।

আশুলিয়ায় অবস্থানকারী ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে বলেন, ‘আমরা প্রস্তুত রয়েছি। কেউ যাতে কোনো ধরনের উষ্কানি দিয়ে এ শিল্পকে অস্থিতিশীল করতে না পারে সে ব্যাপারে পুলিশকে সর্বোচ্চ সর্তক অবস্থানে রাখা হয়েছে। ’

বাংলাদেশ সময় ১৫২২ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa