ঢাকা, রবিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

৭৪১ কোটি ৫১ লাখ টাকার সিসিসি বাজেট, জলাবদ্ধতাকে অগ্রাধিকার

চট্টগ্রাম ব্যুরো | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৫৫ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০১০
৭৪১ কোটি ৫১ লাখ টাকার সিসিসি বাজেট, জলাবদ্ধতাকে অগ্রাধিকার

চট্টগ্রাম: নতুন কর আরোপ করা ছাড়াই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশেনের ২০১০-২০১১ বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। এবারের বাজেট ৭৪১ কোটি ৫১ লাখ ৫৩ হাজার টাকার।

সিটি করপোরেশনের নতুন মেয়র এম মনজুর আলম বৃহস্পতিবার দুপুরে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এ বাজেট ঘোষণা করেন।

নগরের জলাবদ্ধতা দূর করাকে অগ্রাধিকার দিয়ে এবারের বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে।

মেয়র বলেন, ‘জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য একটি নতুন বিভাগ ও একটি স্ট্যান্ডিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। দ্রুত এ সমস্যা সমাধানের জন্য ৫০ কোটি টাকার দরপত্র আহ্বান করা হবে। ’

এছাড়াও এবারের বাজেটে চট্টগ্রাম নগরীকে ডিজিটাল নগরী হিসেবে করে গড়ে তোলা, গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণে সহায়তা দেওয়া, চট্টগ্রামে বিশ্বমানের একটি হাসপাতাল ও আন্তর্জাতিক মানের একটি কনভেনশন সেন্টার নির্মাণের কথা বলা হয়েছে।

নির্বাচিত মেয়র হিসেবে এম মনজুর আলমের এটাই প্রথম বাজেট।

মেয়র মনজুর বলেন, ‘গতবছর মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া ফাইওভার ও মেরিন ড্রাইভ নির্মাণ সংক্রান্ত আড়াই হাজার কোটি টাকার দুটি প্রকল্প বাজেটে অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছিল। এবার প্রকল্প দুটি বাদ দেওয়ায় বাজেটের আকার ছোট হয়েছে। ’

নিজস্ব উৎস, ত্রাণ, উন্নয়ন অনুদান এবং বিবিধ উৎস থেকে বাজেটের অর্থ সংগ্রহ করা হবে বলে বাজেটে উল্লেখ করা হয়েছে।

এরমধ্যে পৌরকর, সম্পদ থেকে অর্জিত ভাড়াসহ সিটি কর্পোরেশনের নিজস্ব উৎস থেকে ৫২১ কোটি ৯৭ লাখ ৫৩ হাজার টাকা, উন্নয়ন অনুদান থেকে দু’শ কোটি ৯৯ লাখ টাকা, অন্যান্য উৎস থেকে ১৮ কোটি ৩৫ লাখ টাকা এবং ত্রাণ সাহায্য থেকে ২০ লাখ টাকা আসবে।  

বাজেট ব্যয়ের মধ্যে উন্নয়ন খাতে ৩৫৯ কোটি ১৯ লাখ টাকা, বকেয়া দেনা পরিশোধ বাবদ ৮৫ কোটি ৩৫ লাখ টাকা, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা, বিদ্যুৎ, গ্যাস বিল পরিশোধ বাবদ ১৯০ কোটি ৯৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা, স্থায়ী সম্পদ রণাবেণ বাবদ ৯২ কোটি টাকা এবং ত্রাণ ব্যয় বাবদ ২০ লাখ টাকা উল্লেখ করা হয়েছে।     

বাজেটে অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে এমন ১৫টি প্রকল্প অনুমোদন ও অর্থ বরাদ্দের জন্য মন্ত্রণালয়ে পাঠনো হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেয়র।

প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে, ৩৪৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নগরীর বিভিন্ন এলাকার সড়ক সম্প্রসারণ, উন্নয়ন ও ফুটপাত নির্মাণ, ১১০ কোটি টাকা ব্যয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কে ফাইওভার নির্মাণ, ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে নগর ভবন নির্মাণ ও ৮৭ কোটি টাকার অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প এবং ৫৭ কোটি টাকায় নগরীর বহদ্দারহাট থেকে কর্ণফুলী নদী পর্যন্ত খাল খনন।

বাজেটে বিভিন্ন সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের কাছে ৩৬১ কোটি টাকা পাওনা আছে বলে উল্লেখ করা হয়। তবে করপোরেশনের দেনার পরিমাণ বাজেটে উল্লেখ করা হয়নি।

অধিবেশনে গত অর্থবছরের ২৯৪ কোটি ২৮ ল ৮২হাজার টাকার সংশোধিত বাজেট প্রস্তাবও অনুমোদন করা হয়।

বাজেট ঘোষণার সময় সিটি করপোরেশনের অর্থ ও সংস্থাপন স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মনজুর এলাহী, সচিব মো.কামরুজ্জামান, অর্থ কর্মকর্তা নারায়ণ চন্দ্র পাল এবং কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।    

বাংলাদেশ সময়:১৭৩৪ঘণ্টা,জুলাই২৯,২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa