bangla news

সিমেন্ট খাতের দাপটে ইতিবাচক পুঁজিবাজার

328 |
আপডেট: ২০১৪-০৪-০৩ ১:২৪:০০ এএম

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে।

ঢাকা: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে।
 
এদিন উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে সিমেন্ট খাতের যথেষ্ঠ প্রভাব লক্ষ্য করা গেছে। বিশেষ করে হাইডেলবার্গ সিমেন্ট কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ সমাপ্ত অর্থবছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৩৮০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেওয়ায় এ খাতের শেয়ারের উপর বিনিয়োগকারীদের চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

বৃহস্পতিবার হাইডেলবার্গ সিমেন্ট কোম্পানির শেয়ার দর ৪০ টাকার বেশি বৃদ্ধি পায়।
 
গত বুধবার এ কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছিল ৪৩৯ টাকায়। বৃহস্পতিবার লেনদেন হয় ৪৮৮ টাকায়।

অন্যদিকে, লাফার্জ সুরমা সিমেন্টের শেয়ারের দরও সামান্য বৃদ্ধি পেয়েছে।
 
এদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫১৮ কোটি ৬ লাখ টাকার। বুধবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৫০০ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড।
 
অপর শেয়ার বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) বৃহস্পতিবার লেনদেন হয়েছে ৩৬ কোটি ৯৪ লাখ টাকার। বুধবার লেনদেন হয়েছিল ৩৫ কোটি ১০ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড।
 
বৃহস্পতিবার ডিএসইতে খাত ভিত্তিক মোট লেনদেনে জ্বালানি খাতের অবদান ১৮ দশমিক ২০ শতাংশ, টেক্সটাইল খাতের ৭ দশমিক ৩০ শতাংশ, মিউচ্যুয়াল ফান্ড ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ, টেলিকমিউনিকেশন খাত ৯ দশমিক ১৫ শতাংশ, আর্থিক প্রাতিষ্ঠান খাত ৩ দশমিক ৯২ শতাংশ, ব্যাংক ৮ দশমিক ০৭ শতাংশ, ওষুধ ও রসায়ন খাত ৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ, প্রকৌশল ৭ দশমিক ৯৩ শতাংশ, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক ৭ দশমিক ৬৭ শতাংশ, সিমেন্ট খাত ১৩ দশমিক ৯৪ এবং ইন্স্যুরেন্স খাতের অবদান ৩ দশমিক ৬৩ শতাংশ।
 
লেনদেনের শুরুতে ডিএসইর সাধারণ সূচক একটানা বাড়তে থাকে। বেলা পৌনে ১টার দিকে সূচক আগের কার্যদিবসের চেয়ে সামান্য কমে যায়। দুপুর ২টা ২৫ মিনিটে সূচক দিনের সর্বোচ্চ ৩৯ পয়েন্ট বৃদ্ধি পায়।

লেনদেন শেষে ডিএসইএক্স সূচক ২৫ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে অবস্থান করে ৪ হাজার ৬২১ পয়েন্টে।
 
ডিএসই-৩০ সূচক ২৩ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে এক হাজার ৬৭০ পয়েন্টে এবং ডিএসই শরীয়াহ সূচক ৬ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে এক হাজার ৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
 
ডিএসইতে লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ১২৫টির, কমেছে ১৩৯টির এবং অপরিবর্তীত রয়েছে ৩১টির দাম।
 
বৃহস্পতিবার ডিএসইতে টাকার ভিত্তিতে লেনদেন হওয়া শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- পদ্মা অয়েল, হাইডেলবার্গ সিমেন্ট, গ্রামীণ ফোন, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, মেঘনা পেট্রোলিয়াম, স্কয়ার ফার্মা, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, যমুনা অয়েল এবং বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল।
 
অপর শেয়ারবাজার সিএসইতে সিএসইএক্স সূচক ৭১ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে অবস্থান করে ৮ হাজার ৯৭৩ পয়েন্টে, সিএসই-৩০ সূচক ১৩০ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে অবস্থান করে ১১ হাজার ৯৮৭ পয়েন্টে এবং সিএএসপিআই সূচক ১০৪ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে অবস্থান করে ১৪ হাজার ২৬২ পয়েন্টে।
 
এদিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৬ কোটি ৯৪ লাখ টাকার বেশি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৫০২ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৩, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2014-04-03 01:24:00