ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

এলডিসি গ্রাজুয়েশনের চ্যালেঞ্জ, এফটিএ-পিটিএ ত্বরান্বিতের তাগিদ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২৩
এলডিসি গ্রাজুয়েশনের চ্যালেঞ্জ, এফটিএ-পিটিএ ত্বরান্বিতের তাগিদ

ঢাকা: স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে ২০২৬ সালে উত্তরণের পর আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে বাংলাদেশ। এলডিসি থেকে উত্তরণ–পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশকে যেসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে, তার প্রস্তুতি হিসেবে এখন থেকেই বিভিন্ন দেশ ও আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থাগুলোর সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) এবং অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি বা প্রেফারেন্সিয়াল ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট (পিটিএ) তরান্বিত করার তাগিদ দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে এফবিসিসিআই কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স, ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড বডিস, ডেভেলপমেন্ট পার্টনারস অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারস বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির দ্বিতীয় বৈঠকে এই আহ্বান জানান ব্যবসায়ীরা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এফবিসিসিআইর সহ-সভাপতি এম এ মোমেন বলেন, ‘এলডিসি গ্রাজুয়েশন নিয়ে আমাদের এখন থেকেই কাজ করতে হবে। এজন্য বাংলাদেশের বিভিন্ন সেক্টরের ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসতে হবে। বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় খাতগুলোকে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সামনে তুলে ধরতে আমরা আগামী মার্চে মাসে বাংলাদেশ বিজনেস সামিটের আয়োজন করছি। ’

বিজনেস সামিট বাস্তবায়ন এবং ভবিষ্যতের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যে পৌঁছাতে এফবিসিসিআই নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি মো. আমিন হেলালী বলেন, স্বল্প আয়ের দেশ থেকে বাংলাদেশে এখন মধ্যম আয়ের দেশে উত্তীর্ণ হওয়ার পথে রয়েছে। এখন আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যকে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে হবে। আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে আঞ্চলিক সহযোগিতা এবং বাণিজ্য চুক্তিতে যেতে হবে। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক উন্নয়ন বিষয়ে এই মিটিং থেকে আসা প্রস্তাবনাগুলো এফবিসিসিআই যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে ধরবে।

বৈঠকে ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন দেশের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) সই, বৈশ্বিক বাণিজ্য ব্যবস্থায় বাংলাদেশের অবস্থান সুদৃঢ় করতে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডাব্লিউটিও), আঙ্কটাড, ইউএনডিপিসহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর সঙ্গে যোগাযোগের আরও জোরদারের তাগিদ দেন।

কমিটির ডিরেক্টর ইন-চার্জ সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন এফটিএ এবং পিটিএ বিষয়ে শিগগিরই এফবিসিসিআইর উদ্যোগে সেমিনারের অয়োজন করা হবে। যতই আমরা এলডিসি গ্র্যাজুয়েশনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি, বিদেশি ব্যবসায়িক সংস্থা এবং বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে সহযোগিতা এবং সমন্বয় ঠিক ততই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে।

সভাপতির বক্তব্যে কমিটির চেয়ারম্যান ও এফবিসিসিআইর সাবেক পরিচালক মো. শাফকত হায়দার বলেন, বৈদেশিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি ও সম্পর্ক উন্নয়নের দিকে আমাদেরকে নজর দিতে হবে।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইর পরিচালক হাসিনা নেওয়াজ, ড. নাদিয়া বিনতে আমিন, আবু হোসেন ভূইয়াঁ রানু, সাবেক পরিচালক খন্দকার রুহুল আমিন, মাহবুব আলম, মোহাম্মদ খোকন, এফবিসিসিআইর মহাসচিব মোহাম্মদ মাহফুজুল হক, আন্তর্জাতিক বিভাগের প্রধান সাবেক রাষ্ট্রদূত মাসুদ মান্নান, কমিটির কো-চেয়ারম্যান মো. মোতাহার হোসেন খান, কে.এইচ.এম শহীদুল হক প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২৩
এমকে/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।