ঢাকা, বুধবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৮, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ সফর ১৪৪৩

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

মমতাকে হাসপাতালে দেখতে এসে তোপের মুখে রাজ্যপাল

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২০৫ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০২১
মমতাকে হাসপাতালে দেখতে এসে তোপের মুখে রাজ্যপাল

কলকাতা: নন্দীগ্রামে মুখ থুবড়ে পড়ে আহত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে দেখতে এসে তোপের মুখে পড়েন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তাকে হাসপাতাল চত্বরে দেখা মাত্রই উপস্থিত তৃণমূলের কর্মী ও সমর্থকরা গো ব্যাক স্লোগান দিতে থাকেন।

হাসপাতালে মমতার সঙ্গে রয়েছেন তৃণমূলের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়সহ তৃণমূলের শীর্ষ নেতারা। কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালেই চিকিৎসা হবে মমতার। তার চিকিৎসায় প্রস্তুত আছেন পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। রয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্য সচিবও।

১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটে গ্রিন করিডোরে মুখ্যমন্ত্রীকে আনা হয়েছে হাসপাতালে। হুইলচেয়ারে করে মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে পিজি হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডের সাড়ে ১২ নম্বর ভিভিআইপি কেবিনে। তার চোটের জায়গাগুলো এক্সরে করা হচ্ছে। তার বর্তমান অবস্থা স্থিতিশিল বলে জানা গেছে। তবে চিকিৎসকরা এখনও কোনো মেডিক্যাল বুলেটিন দেননি।
ভোটের মুখে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিয়ে উটলো বড়সড় প্রশ্ন। গোটা ঘটনা নির্বাচন কমিশনকে অভিযোগ আকারে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই। খবর জানাজানি হতেই পদক্ষেপ নিয়েছে কমিশন। মমতার বয়ান রেকর্ড করা হবে বলে জানিয়েছে তারা।

জেড প্লাস নিরাপত্তা পান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার মধ্যেই নিরাপত্তার বেড়াজাল ভেঙে কীভাবে এত মানুষ এলেন ও মুখ্যমন্ত্রীকে ধাক্কা দিলেন তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে বিজেপি।

মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগকে নাটক বলে দাবি করেছেন বিজেপি সংসদ সদস্য অর্জুন সিং।

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেন, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ও পুলিশমন্ত্রী তিনি। তার ওপরেই হামলা। এটা বিশ্বাসযোগ্য নয়। কেন লোকাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলো না। এটা রাজনৈতিক ভণ্ডামি। নির্বাচনের ভণ্ডামি।
জানা যায়, বুধবার নন্দীগ্রামে নির্বাচনী কর্মসূচিতে ভিড়ের মধ্যে আচমকা ধাক্কা দেওয়ায় মুখ থুবড়ে পড়ে যান মমতা। কপালে ও মাথায় আঘাত লাগে তার। আঘাত লাগে বাম পায়েও। এ সময় ঘটনাস্থলে পুলিশের কেউ ছিলো না বলে অভিযোগ। দেহরক্ষীরাই কোনো ধরনের তুলে গাড়িতে নিয়ে যান মমতাকে।

রেয়াপাড়ায় ভাড়া নেওয়া বাড়ির উদ্দেশে তাকে নিয়ে রওয়ানা দেয় গাড়ি। কিন্তু পথেই অসম্ভব যন্ত্রণা অনুভব করেন মমতা। রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে একটি দোকান থেকে বরফ নিয়ে তার পায়ে দেওয়া হয়। তবে, বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছাতে আরও যন্ত্রণা আরও বাড়ে বলে জানা গেছে। পিঠেও যন্ত্রণা অনুভব করেন মুখ্যমন্ত্রী। সঙ্গে সঙ্গে তাকে কলকাতায় ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন>>

*** হেলিকপ্টারযোগে কলকাতায় নেওয়া হলো মমতাকে, চলছে চিকিৎসা
***চক্রান্ত করে আমাকে ধাক্কা মারা হয়েছে: মমতা

বাংলাদেশ সময়: ০২০০ ঘণ্টা, মার্চ ১০, ২০২১
ভিএস/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa