ঢাকা, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

মমতার সরকারকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুতি রাইটার্সে

আনোয়ারুল করিম ও রক্তিম দাশ | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৯ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০১১
মমতার সরকারকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুতি রাইটার্সে

মহাকরণ (কলকাতা) থেকে: পশ্চিমবঙ্গে পরবর্তী সরকার গঠনের জন্য মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের জন্য রাজ্য সরকারের সচিবালয় ‘রাইটার্স বিল্ডিং’খ্যাত মহাকরণ ধোয়ামোছাসহ ছোটখাটো সংস্কারের কাজ চলছে।

এছাড়া বিগত ৩৪ বছর ধরে মুখ্যমন্ত্রীদের শপথের ছবিসহ সরকারের উন্নয়নকাজের ছবিগুলোও সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

জ্যোতি বসুর প্রথম মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার শপথের ছবিটিও অপসারণের তালিকায় রয়েছে। এদিকে রাইটার্স বিল্ডিংয়ের বিভিন্ন তলায় অবস্থিত ক্যান্টিনগুলোও বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।     

শনিবার মহাকরণ ঘুরে সংস্কারের এসব তথ্য জানা যায়।

পূর্তসচিব অজিত রঞ্জন বর্ধন এসব প্রস্তুতি সম্পর্কে বাংলানিউজকে বলেন, ‘রোববারের মধ্যে এসব কাজ শেষ হবে। ’  

তিনতলায় মুখ্যমন্ত্রীর কক্ষ ও এর আশেপাশের এলাকাগুলোর সংস্কারে বেশি নজর দেওয়া হচ্ছে। বিশেষ করে মুখ্যমন্ত্রীর কক্ষের সামনের বারান্দা ও খোলা স্থানটি আরও বড় করা হচ্ছে। সেখানে একটি অংশে একটি সরকারি ব্যাংকের শাখা অফিস ছিল, যা সরানো হয়েছে।

পূর্তসচিব জানালেন, ‘ইউকো ব্যাংকের শাখার কারণে মূখ্যমন্ত্রীর দর্শনার্থীদের কক্ষটি এতোদিন ছোট হয়েছিল। যা এখন একটু বড় হবে।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের আগেই সেটি সরানোর সিদ্ধান্ত হয়েছিল। কিন্তু আচরণবিধি লঙ্ঘিত হবে এজন্য কাজগুলো করা হয়নি। ’

পূর্তসচিব বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি রাজ্যের মুখ্যসচিবের জন্যও একটি দর্শনার্থীকক্ষ প্রস্তুত করা হচ্ছে। ’

মহাকরণে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর একটি কক্ষ রয়েছে। যদিও সল্টলেকে স্বাস্থ্য দপ্তরেই মন্ত্রী দাপ্তরিক কাজকর্ম করেন। এজন্য রাইটার্স বিল্ডিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কক্ষটি মন্ত্রীদের বিশ্রামকক্ষ হিসেবে প্রস্তুত করা হবে।

অজিত রঞ্জন বলেন, ‘মহাকরণের বাইরে কযেকজন মন্ত্রীর দপ্তর আছে। তারা রাইটার্স বিল্ডিংয়ে এলে এই কক্ষে বিশ্রাম নেবেন। ’

মন্ত্রীদের কক্ষ রং করা প্রসঙ্গে পূর্তসচিব বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রীদের কক্ষের রং তাদের পছন্দ অনুযায়ী করে দেওয়া হবে। ’

সেক্ষেত্রে তৃণমূল কংগ্রেসের (টিএমসি) মন্ত্রীদের কক্ষের রং সবুজ হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বামফ্রন্ট সরকারের মন্ত্রীরা যে যেখানে বসতেন নতুন মন্ত্রীরাও ওই দপ্তরে বসবেন বলে জানান তিনি।

বারান্দা থেকে ক্যান্টিন সরিয়ে দেওয়া প্রসঙ্গে পূর্তসচিব বলেন, ‘মহাকরণের একতলায় থাকবে খাবারের স্থান। ’

তিনি বলেন, ‘অনেকে স্টোভ জ্বালিয়ে চায়ের ব্যবসা করছেন। যখন তখন আগুন লেগে যেতে পারে। এসব ছোট ক্যান্টিন পরিচালনার চুক্তিতে স্টোভ জ্বালানোর অনুমোদন ছিল না। ’

পূর্ত সচিব আরও জানান, ‘রাইটার্স বিল্ডিংয়ের বিভিন্ন তলার কক্ষগুলোতে ইঁদুর ও বেড়ালের উৎপাত রেড়েছে। এসব দূর করতেও একটি বেসরকারি সংস্থা কাজ করছে। ’

উল্লেখ্য, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ১৮ মে রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রীদের শপথের পর সেদিনই মহাকরণে অফিস করতে চলে আসবেন মমতা ব্যানার্জিসহ তার মন্ত্রিসভার সদস্যরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩০ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa