ঢাকা, বুধবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

কলকাতার ৬০ শতাংশ বুথ ঝুঁকিপূর্ণ

রক্তিম দাশ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০০ ঘণ্টা, মার্চ ২৬, ২০১১

কলকাতা: ভারতে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে কলকাতা জেলার ৬০ শতাংশ বুথই ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করছে কলকাতা পুলিশ। এ মর্মে একটি রিপোর্ট রাজ্য নির্বাচন কমিশনে পাঠানো হয়েছে।



কলকাতা পুলিশের একটি সূত্র থেকে জানা গেছে, ‘কলকাতা পুলিশের থানা এলাকাগুলোতে বেশ কয়েকবার বৈঠক করে এই বুথগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৫ শতাংশ বুথ আবার অতি ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। রাজনৈতিক উত্তেজনা ও অপরাধী অধ্যুষিত এলাকাগুলোই ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। ’

আরও জানা গেছে, মহানগরীর প্রতিটি বুথের নিরাপত্তার জন্য কলকাতা পুলিশের পাশাপাশি মোতায়েন থাকবে কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনী। বুথের ভেতরে ও বৈদ্যুতিক ভোট যন্ত্রের দায়িত্বে থাকবে আধা সামরিক বাহিনী। বুথের বাইরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে কলকাতা পুলিশ।

ঝুঁকিপূর্ণ বুথগুলোতে নিরাপত্তার জন্য আধাসামরিক বাহিনীর সদস্য সংখ্যা সংখ্যা বাড়ানো হবে। সাধারণত বুথপ্রতি আধাসামরিক বাহিনীর ৬ জন জওয়ান থাকেন। ঝুঁকিপূর্ণ ও অতিঝুঁকিপূর্ণ বুথগুলোর ক্ষেত্রে এ সংখ্যা বাড়িয়ে ১০ জন করা হতে পারে।

কলকাতার যুগ্ম নগরপাল (সদর) জাভেদ শামিম জানিয়েছেন, নাগরিকরা যাতে নিরাপদে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন, তা সুনিশ্চিত করার জন্য নিñিদ্র নিরাপত্তা গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন কিছু নির্দিষ্ট নির্দেশিকা দিয়েছে। তা যথাযথ পালনের জন্য পরিকল্পনা করা হয়েছে।

আগামী ২৭ এপ্রিল কলকাতা শহরের ১১টি বিধানসভা কেন্দ্র ভোট নেওয়া হবে। এখনও কতগুলো বুথ হবে তা ঠিক হয়নি। তবে এই সংখ্যা ৮০২ থেকে ৮০৪ এর মধ্যে থাকবে। প্রতি ১৭২টি বুথের সবক’টিতে একটি করে সেক্টর অফিস তৈরি করা হচ্ছে। এই সেক্টর অফিসের দায়িত্বে থাকবেন রাজ্য সরকারের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা। এই সেক্টর অফিসে থাকবে অতিরিক্ত বাহিনী।

কোথাও কোনো ঘটনা ঘটলে এই বাহিনীকে প্রয়োজন অনুসারে পাঠানো হবে। কলকাতা পুলিশের ২৬ হাজার কর্মী ও কর্মকর্তা প্রত্যেকেই এবার নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত থাকবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৮ ঘণ্টা, মার্চ ২৬, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।