ঢাকা, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

নয়াদিল্লি থেকে খুররম জামান

নুর হোসেনকে ফেরত দেবে ভারত, প্রক্রিয়া চলছে অনুপ চেটিয়ার

খুররম জামান, ডিপ্লোম্যাটিক অ্যাফেয়ার্স এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৪
নুর হোসেনকে ফেরত দেবে ভারত, প্রক্রিয়া চলছে অনুপ চেটিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী

নয়াদিল্লি: কলকাতার কারাগারে থাকা চাঞ্চল্যকর নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলার প্রধান আসামি নুর হোসেনকে ফেরতের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারত।

শনিবার নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ পরামর্শক কমিশনের (জেসিসি) বৈঠকে ভারত এ ব্যাপারে অঙ্গীকার করে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।



জেসিসি বৈঠকের পর শনিবার সন্ধ্যায় নয়াদিল্লির তাজমান সিং হোটেলে নিজ কক্ষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এ সময় বাংলানিউজের করা এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নুর হোসেনকে ফেরতের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারত।

পাশাপাশি বাংলাদেশের কারাগারে থাকা উলফা নেতা অনুপ চেটিয়াকে ফেরতের  প্রক্রিয়াও চলছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তবে এ সব ব্যাপারে আরও সময় প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জেসিসি বৈঠকে উভয় দেশের অমীমাংসিত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিস্তৃত আলোচনা হয়েছে। বৈঠকের ফলাফল নিয়ে তিনি উচ্ছ্বসিত। নতুন নতুন প্রতিশ্রুতির মাধ্যমে উভয় দেশের  সম্পর্কের গভীরতা নতুন উচ্চতায় উঠেছে বলেও এ সময় উল্লেখ করেন তিনি।

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ ও ভারতের দুই দেশের অভিন্ন সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, দুই দেশের মধ্যে অনেক কিছুতেই মিল আছে। আর এ সম্পর্ক গড়ে উঠেছে একাত্তরে।

পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ডিসি পর্যায়ের বৈঠক হবে বলেও এ সময় উল্লেখ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পাকিস্তানি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে বাংলাদেশ আসার আগে বঙ্গবন্ধু প্রথমে ভারত গেছেন, তারপর কলকাতা হয়ে বাংলাদেশে যান। তাই বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের দিকে যাচ্ছে। ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির আগেই মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হবে বাংলাদেশ।

এ সময় বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল ও ভারত নিয়ে গঠিত জোটে মায়ানমারকেও নেয়ার বিষয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আগ্রহের কথা তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এছাড়া মোদী বাংলাদেশ, ভারত, চীন ও মায়ানমারকে  নিয়েও জোট গঠনের আগ্রহ প্রকাশ করেন বলে উল্লেখ করেন আবুল হাসান মাহমুদ আলী।
 
জেসিসি বৈঠকে বাংলাদেশের তরফে ভারতীয় ব্যবসায়ীদের জন্য বিশেষ শিল্প জোন গঠনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে বলেও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

পাশাপাশি ভারতীয় শিল্প উদ্যোক্তারা বাংলাদেশে ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশের কারখানা গড়ে তুলতে পারে বলে উল্লেখ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ ব্যাপারে ভারতে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এছাড়া ভারতীয় সহায়তার এ বিলিয়ন ডলার সুচারুভাবে খরচ করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, শনিবার নয়াদিল্লিতে ‍অনুষ্ঠিত তৃতীয় জেসিসি বৈঠকে বাংলাদেশ পক্ষের নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

ভারত সফরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। সফর চলাকালীন তিনি ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীসহ ভারতের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।  

সফর শেষে জাতিসংঘের ৬৯ তম সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিতে শনিবার রাতেই দিল্লি থেকে নিউইয়র্কের উদ্দেশে রওয়ানা হবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বাংলাদেশ সময়: ২১০২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad