ঢাকা, সোমবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ত্রিপুরায় সব ধরনের অপরাধের হার কমছে: মুখ্যমন্ত্রী 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৯, ২০২৪
ত্রিপুরায় সব ধরনের অপরাধের হার কমছে: মুখ্যমন্ত্রী 

আগরতলা (ত্রিপুরা): বর্তমান সরকারের সময়ে ত্রিপুরা রাজ্যের সব ধরনের অপরাধের হার কমছে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মানিক সাহা। চলমান বিধানসভা অধিবেশনে বিরোধী বিধায়কদের আনা প্রশ্নের লিখিত জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

 

মন্ত্রী জানান, ২০২১ সালে রাজ্যে যেখানে ১২১টি খুনের ঘটনা লিপিবদ্ধ হয়েছিল, সেখানে ২০২২ সালে তা কমে হয় মাত্র ১০৪টি। সর্বশেষ ২০২৩ সালের আগস্ট মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত রাজ্যে খুনের ঘটনা রেকর্ড হয় ৬৪টি। ২০২১ সালে রাজ্যে নারী ধর্ষণের ঘটনা সংঘটিত হয়েছিল ১৫২টি, ২০২২ সালের তা কমে হয়েছে ১৪০টি। আর ২০২৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত হয় ৯৭টি।  

তিনি জানান, ২০২১ সালে রাজ্যে নাবালিকা অপহরণের ঘটনা ঘটে ৬১টি, ২০২২ সালে সংঘটিত হয় ৪৩টি এবং ২০২৩ সালের ৩১আগস্ট পর্যন্ত সংঘটিত হয় ৩৬টি। ২০২১ সালে তরুণী অপহরণের ঘটনা ঘটে ৪৫টি, ২০২২ সালে সংগঠিত হয় ৩৭টি এবং ২৩৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংগঠিত হয় ২৯টি। ২০২১ সালের রাজ্যে অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১ হাজার ৪৬০টি, ২০২২ সালে রাজ্যে এ ঘটনা সংঘটিত হয় ১ হাজার ৩৭৮টি এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংঘটিত হয় ৭৯৪টি।  

২০২১ সালে রাজ্যে নারীদের শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটে ১২৬টি, ২০২২ সালের সংঘটিত হয় ১২৩টি এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংগঠিত হয় ১০৭টি। গত তিন বছরে রাজ্যে নারীদের ওপর এসিড নিক্ষেপের ঘটনা একটিও সংঘটিত হয়নি। ২০২১ সালে রাজ্যে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ৩৫৫টি, ২০২২ সালে রাজ্যে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ৩৩৮টি এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ২২৩টি।  

২০২১ সালে যৌতুকের জন্য গৃহবধূর ওপর নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ২৯৮টি, ২০২২ সালে সংঘটিত হয় ২৭৯টি এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংগঠিত হয় ১৫৯টি। ২০২১ সালে রাজ্যে ডাকাতির ঘটনা সংঘটিত হয় সাতটি, ২০২২ সালে সংগঠিত হয় মাত্র একটি এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত একটিও সংঘটিত হয়নি। ২০২১ সালে রাজ্যে চুরির ঘটনা সংঘটিত হয় ৩৬১টি, ২০২২ সালে রাজ্যে চুরির ঘটনা সংঘটিত হয় ৩০৪টি এবং ২০২৩ সাল ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংগঠিত হয় ২১২টি।  

২০২১ সালে রাজ্যে রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে ২৮৯টি। ২০২২ সালে সংঘটিত হয় মাত্র ২০৬টি এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংগঠিত হয় ৩১১টি। এ তিন বছরে প্রাণনাশের হুমকির ঘটনা একটি সংঘটিত হয়নি। ২০২১ সালে রাজ্যে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে ৭৬৮টি, ২০২২ সালে সংঘটিত হয় ৭১২টি এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংগঠিত হয় ৪০৯টি।  

২০২১ সালের রাজ্যে যান দুর্ঘটনায় নিহত হন ১৮১ জন। ২০২২ সালে যান দুর্ঘটনায় ২৩২ জন নিহত হন এবং ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত রাজ্যে যান দুর্ঘটনায় ১৫০ জন নিহত হন। ২০২১, ২০২২ ও ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত রাজ্যে খুন এবং দর্শন সংক্রান্ত ঘটনায় মোট এক হাজার আট জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং মাত্র ৬৩ জন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর, ২০২৩
এসসিএন/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।