ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

পশ্চিমবঙ্গের খাদ্যমন্ত্রীর বাড়িতে ইডির তল্লাশি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৫২ ঘণ্টা, অক্টোবর ৫, ২০২৩
পশ্চিমবঙ্গের খাদ্যমন্ত্রীর বাড়িতে ইডির তল্লাশি

কলকাতা: দীর্ঘদিন মধ্যমগ্রাম পুরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন রথীন ঘোষ। সেই সময় পুরসভায় নিয়োগ সংক্রান্ত অনিয়মের অভিযোগ উঠে।

এর ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) স্থানীয় সময় সকাল ৬টার দিকে পশ্চিমবঙ্গের খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছে ভারতের এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)।

খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষ মধ্যমগ্রামের তৃণমূল বিধায়ক এবং থাকেন উত্তর ২৪ পরগণার বারাসাত অঞ্চলের মাইকেল নগরে। পুরনিয়োগ দুর্নীতি মামলায় এই প্রথম কোনো মন্ত্রীর বাড়িতে তল্লাশি চলছে। রাজ্যজুড়ে মোট ১২টি এলাকায় চলছে তল্লাশি।

ইডি সূত্রে জানা যায়, পুর নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে অয়ন শীলের সংস্থা, এবিএস ইনফোজোনের অফিস থেকে বাজেয়াপ্ত করা বিভিন্ন নথি খতিয়ে দেখে রথীন ঘোষের নাম বারবার উঠে আসে।

ইডির দাবি, ২০১৪ সালের পর থেকে পুরসভায় নিয়োগ সংক্রান্ত আর্থিক লেনদেনের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এর ভিত্তিতেই রথীনের বাড়িতে তল্লাশি চালায় । অর্থ কোথায় ও কাদের কাছে পৌঁছেছে, কীভাবে পৌঁছেছে, সেই ‘মানি ট্রেল’ খতিয়ে দেখাই ইডির উদ্দেশ্য।

বুধবার (৪ অক্টোবর) রাত ৩টার দিকে ইডির সদরদপ্তর সিজিও কমপ্লেক্সে ডেকে নেওয়া হয় ইডি কর্তাদের। তদন্তকারীদের ১০-১২টি দলে ভাগ করে ভোর থেকে শুরু হয়েছে ম্যারাথন তল্লাশি। পুর নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় গত মাসে উত্তর ২৪ পরগনার একাধিক পুরসভার কর্মী ও কর্তাদের তলব করা হয়।  

সূত্রের খবর, ওই জেলার বরানগর, কামারহাটি, পানিহাটি, উত্তর দমদম, দক্ষিণ দমদমসহ যেসব পুরসভায় এর আগে সিবিআই অভিযান চালিয়েছিল, সেসব পুরসভার কর্মী ও কর্তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বয়ান রেকর্ডের প্রক্রিয়া কেন্দ্রীয় এজেন্সি শুরু করছে।

২০১৪ সালের পর থেকে যেসব নিয়োগ হয়েছে, তা নিয়েই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা গেছে। কোনো কোনো পদে নিয়োগ হয়েছে, কীভাবে নিয়োগ প্রক্রিয়া চলেছে, কারও নির্দেশে নিয়োগ হয়েছিল কি না এই সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশ্ন প্রস্তুত করে ইডি।

এক এফআইএর পর ৭ জুন প্রথম সিবিআই তল্লাশি অভিযান করে। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, মজদুর, ক্লার্ক, পিয়ন, অ্যাসিস্ট্যান্ট থেকে শুরু করে ড্রাইভার সর্বত্র ঢাকার বিনিময়ে নিয়োগের অভিযোগ।

২০১৪ সালের পর থেকে এই পুরসভাগুলোতে কীভাবে নিয়োগ হয়েছে। কতজনকে নিয়োগ করা হয়েছে। নিয়োগ নিয়ে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছিল কি না, কী পদ্ধতিতে বিভিন্ন ধাপে বাছাই হয়েছে। কোনো কোনো প্রার্থীকে বাছাই করে হয়েছিল সেটা কীসের ভিত্তিতে বাছাই করা হয়েছিল, কী প্রক্রিয়ায় গোটা নিয়োগ হয়েছিল, বাছাইয়ের প্রক্রিয়ায় কারা জড়িত ছিলেন সবই খুঁজে দেখছেন সিবিআই আধিকারিকরা। আর এবার পুর নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় এই প্রথম কোনো মন্ত্রীর বাড়িতে তল্লাশি শুরু করেছে ইডি।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫২ ঘণ্টা, অক্টোবর ০৫, ২০২৩
ভিএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।