ঢাকা, সোমবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৭ মে ২০২৪, ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

মোদির রাজ্য গুজরাট থেকে মেঘালয়ে ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৫৭ ঘণ্টা, আগস্ট ৯, ২০২৩
মোদির রাজ্য গুজরাট থেকে মেঘালয়ে ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’

কলকাতা: কন্যাকুমারী থেকে কাশ্মীরের পর এবার গুজরাট থেকে মেঘালয়ে ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে আরও একটি ‘ভারত জোড়ো যাত্রার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে কংগ্রেস।

মহারাষ্ট্র রাজ্য ইতোমধ্যে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। মঙ্গলবার (৮ আগস্ট) রাজ্যটির কংগ্রেস সভাপতি নানা পাটোলে সাংবাদিক সম্মেলনে জানিয়েছেন, চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি নাগাদ মোদীর রাজ্য গুজরাট থেকে যাত্রা শুরু করবেন রাহুল। শেষ হবে উত্তর-পূর্বের রাজ্য মেঘালয়ে।

এ বিষয়ে তিনি ইতোমধ্যে ৪৮ জন পর্যবেক্ষককে নিয়োগ করেছেন। রাজ্যের ৪৮টি লোকসভা আসন এলাকার সাংগঠনিক অবস্থা সম্পর্কে পর্যবেক্ষক টিম রিপোর্ট দেবে।  

গত বছর ৭ সেপ্টেম্বর ভারতের তামিলনাড়ুর কন্যাকুমারী থেকে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী প্রথমবার ভারত জোড়ো যাত্রা শুরু করে চলতি বছর ৩০ জানুয়ারি শেষ করেছিলেন জম্মু ও কাশ্মীরে।  

৫২ বছর বয়সে ভারতকে জোড়ার আকাঙ্ক্ষা নিয়ে ১২টি রাজ্য এবং ২টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল মিলিয়ে, ১৩৫ দিনে সাড়ে ৩ হাজার কিলোমিটারের বেশি পথ হেঁটেছিলেন রাহুল।

এরপরই মোদির পদবি বিতর্কে ২৪ মার্চ সাংসদ সদস্য পদ খোয়াতে হয়েছিল কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধীকে।  

তবে সোমবার (৭ আগস্ট) সেই পদ ফিরে পেয়ে স্বস্তিতে কংগ্রেস। আর দল চাঙ্গা হতেই দ্বিতীয়বারের জন্য ফের ভারত জোড়ো যাত্রার তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছেন রাহুল গান্ধী।

গুজরাটের বিরোধী দলনেতা কংগ্রেসের অমিত চাভদার জানিয়েছেন, আমরা চাই রাহুলজি দ্বিতীয় পর্যায়ের যাত্রা মহাত্মা গান্ধী, সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্ম ও কর্মভূমি অর্থাৎ গুজরাট থেকে শুরু করুন। সে জন্য রাহুলকে লিখিতভাবে আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

তবে, কংগ্রেসের ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট গ্রুপ এখনও রাহুলের যাত্রাপথ পুরোপুরি চূড়ান্ত করতে পারেনি।    

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৬ ঘণ্টা, আগস্ট ০৯, ২০২৩
ভিএস/এসএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।