ঢাকা, শুক্রবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ত্রিপুরায় কংগ্রেস তৃণমূল ও বামফ্রন্টের নেতাদের বিজেপিতে যোগদান 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫০ ঘণ্টা, জুলাই ৫, ২০২৩
ত্রিপুরায় কংগ্রেস তৃণমূল ও বামফ্রন্টের নেতাদের বিজেপিতে যোগদান 

আগরতলা (ত্রিপুরা): শক্তি বাড়াচ্ছে ত্রিপুরা রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। বুধবার (৫ জুলাই) এক যোগদান সভায় বিরোধী দলগুলোর এক ঝাঁক নেতাকর্মী বিজেপিতে যোগ দেন।

 

এর মধ্যে ছিলেন ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেসের সাবেক মুখপাত্র প্রশান্ত ভট্টাচার্য, ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি আশীষ লাল সিংহ। বামফ্রন্ট সমর্থিত শ্রমিক সংগঠন সিআইটিইউর ত্রিপুরা রাজ্য কমিটির সদস্য সুরজিৎ ভট্টাচার্য।

তাদের হাতে বিজেপির দলীয় পতাকা তুলে দিয়ে দলে বরণ করে নেন প্রদেশ বিজেপির সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য। এই সময় প্রদেশ বিজেপি সভাপতি ছিলেন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী, প্রদেশ সাধারণ সম্পাদক অমিত রক্ষিত ও প্রদেশ মুখপাত্র অস্মিতা বণিক।

বিজেপিতে যোগদানের পর আশীষ লাল সিংহ বলেন, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সবসময় ত্রিপুরা রাজ্যের দলের নেতাকর্মীদের তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতায় এমনকি আগরতলাতে এলেও কখনো সরাসরি কথা বলেননি।

অপরদিকে প্রশান্ত ভট্টাচার্য বিজেপিতে যোগদান করার বিষয়ে নিজের অভিমত ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, দীর্ঘ বছর কংগ্রেস রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। দলের কঠিন সময়েও তারা নানা প্রতিকূলতার মধ্যে কংগ্রেসকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন। কিন্তু কংগ্রেস দল এখন দেউলিয়া হয়ে গিয়েছে, নিজেরা নিজেদের সিদ্ধান্তে চলে না। বামফ্রন্টের ওপর ভর করে চলার চেষ্টা করছে। এমন পরিস্থিতিতে বিরক্ত হয়ে তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন।  

আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপি দলে যোগ দেওয়ার আগে প্রশান্ত ভট্টাচার্য ও আশীষ লাল সিংহ সাক্ষাৎ করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ডা. মানিক সাহার সঙ্গে। আশীষ লাল সিংহ ত্রিপুরার প্রথম মুখ্যমন্ত্রী শচীন্দ্র লাল সিংহের ছেলে। তাদের সঙ্গে কর্মী সমার্থকরাও বিজেপিতে আসছেন বলে জানিয়েছেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৮ ঘণ্টা, জুলাই ৫, ২০২৩ 
এসসিএন/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।