ঢাকা, সোমবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

বিশ্বে এক-তৃতীয়াংশ মৃত্যুর জন্য দায়ী হার্ট অ্যাটাক: ডা. প্রবীর  

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
বিশ্বে এক-তৃতীয়াংশ মৃত্যুর জন্য দায়ী হার্ট অ্যাটাক: ডা. প্রবীর   ...

চট্টগ্রাম: বাংলাদেশ হাইপারটেনশান অ্যান্ড হার্ট ফেইলিওর ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. প্রবীর কুমার দাশ বলেছেন, বিশ্বে মানুষের মৃত্যুর সবচেয়ে বড় কারণগুলোর একটি হার্ট অ্যাটাক। অসংক্রামক ব্যাধির মধ্যে হদরোগ বিশ্বব্যাপী ভয়াবহ আকার ধারণ করছে।

ধূমপান, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন ও হাঁটাচলা না করার কারণে হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ছে। বিশ্বে এক-তৃতীয়াংশ মৃত্যুর জন্য দায়ী হার্ট অ্যাটাক বা হৃদরোগ।  

বাংলাদেশেও হার্ট অ্যাটাক বা হৃদরোগ এখন খুবই সাধারণ ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। হৃৎপিণ্ড থাকলে হৃদয়বান হওয়া যায় না। হার্টকে নিয়মিত চেকআপে রাখতে হবে। করোনাকালীন সময়ে যারা মৃত্যুবরণ করেছে তাদের মধ্যে অধিকাংশেরই মৃত্যু হার্ট অ্যাটাকে। মানুষকে হার্ট অ্যাটাকের ঘাতক ব্যাধি থেকে বাঁচাতে হলে সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে সর্বত্র সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। নিজেদেরকে ডাক্তার না ভেবে গুরুত্বপূর্ণ রোগী মনে করে হার্টের রোগীদের আন্তরিকভাবে চিকিৎসা দিতে হবে।  

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টায় বিশ্ব হার্ট দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে আয়োজিত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।  

দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল ‘হৃদয় দিয়ে হৃদয়কে ভালোবাসুন, পরিবেশ ও প্রকৃতিকে রক্ষা করুন’।  সেমিনারে সায়েন্টিফিক পার্টনার ছিল অপসোনিন ফার্মা। সেমিনারে বিশ্ব হার্ট দিবস উপলক্ষে কেক কাটা হয়। শেষে দিবসটি উপলক্ষে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। যা প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করেন।  

সেমিনারে বক্তারা বলেন, আমরা নিজেদের হার্ট নিয়ে কখনো চিন্তা করি না। হার্ট অ্যাটাক মৃত্যুর প্রধান কারণ। হার্টের যত্ন না নিলে অকালেই চলে যেতে হবে। পারিবারিক হৃদরোগ ইতিহাস, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, অতিরিক্ত ধূমপান, অতিরিক্ত ওজন বা স্থূলতা, অলস জীবনযাত্রা, অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাস, অতিরিক্ত উৎকণ্ঠা ও অতিরিক্ত মদ্যপান হৃদরোগের অন্যতম কারণ। শরীরের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গের মতো হার্ট বা হৃদপিণ্ডেরও যত্ন নিতে হবে।  

চট্টগ্রাম ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ও  উপ-পরিচালক ডা. সেখ ফজলে রাব্বির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ ও জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী। জেনারেল হাসপাতালের কনসালটেন্ট (অ্যানেস্থেসিয়া) ডা. মৌমিতা দাশের সঞ্চালনায় সেমিনারে বিশ্ব হার্ট দিবস সম্পর্কে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিনিয়র কনসালটেন্ট (কার্ডিওলজি) ডা. আবুল হোসেন শাহীন। বক্তব্য দেন আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মোস্তফা জামাল হায়দার, সিনিয়র কনসালট্যান্ট (অর্থো সার্জারি) ডা. অজয় কুমার দাশ, কনসালট্যান্ট (মেডিসিন) ডা. হামিদুল্লাহ মেহেদী, কনসালটেন্ট (অ্যানেস্থেসিয়া) ডা. রাজদ্বীপ বিশ্বাস ও অপসোনিন ফার্মার প্রতিনিধি মো. কুতুবুজ্জামান।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa