ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ আগস্ট ২০২২, ১০ মহররম ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

ট্রেনে ফেলে আসা টাকা ফেরত পেলেন ৭৯ বছরের বৃদ্ধা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৩ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২২
ট্রেনে ফেলে আসা টাকা ফেরত পেলেন ৭৯ বছরের বৃদ্ধা স্টেশন ম্যানেজারের কাছ থেকে টাকা বুঝে নিচ্ছেন ছেলে মো. জাহেদ হাসান

চট্টগ্রাম: হোসনে আরা বেগম। বয়স ৮০ ছুঁইছুঁই।

চলাফেরা করেন হুইল চেয়ারে। দুই সন্তানের জননী হোসনে আরা বেগম ট্রেনযোগে আসছিলেন ঢাকা থেকে। ভুলবশত ট্রেনের কেবিনে বালিশের নিচে ফেলে আসেন ২৫ হাজার টাকা। পরে স্টেশন ম্যানেজারের হস্তক্ষেপে টাকা ফিরে পান ওই বৃদ্ধা।

ঘটনাটি শনিবার (২ জুলাই) ঢাকা থেকে আসা সকাল সাড়ে ৬টার তূর্ণা-নিশিতা (৭৪২ নম্বর) ট্রেনে।

জানা গেছে, নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলার বাসিন্দা হোসনে আরা বেগম। ঢাকা থেকে তূর্ণা-নিশিতা ট্রেনে করে চট্টগ্রামে ছেলের বাসায় আসছিলেন। ভুলে ট্রেনের ‘গ’ বগির ২ নম্বর কেবিনের বালিশের নিচে ২৫ হাজার ২০০ টাকা ফেলে চলে আসেন। অর্ধেক পথ আসার পর টাকার কথা মনে পড়ে। স্টেশনে গিয়ে ট্রেনের সুপারভাইজার শাফিউল আলমকে বিষয়টি অবহিত করেন। তিনি সঙ্গে সঙ্গে ট্রেনের বেডিং বিছানো লোকদের ডেকে বিষয়টি জানতে চান। তখন টাকার কথা অস্বীকার করেন সবাই। পরে সুপারভাইজার স্টেশন ম্যানেজারকে ঘটনাটি জানান। ম্যানেজার সবাইকে এক ঘন্টা সময়ের মধ্যে টাকা এনে দিতে বলেন। না হয় পুলিশকে বিষয়টি জানানোর কথা বলেন। এক পর্যায়ে ট্রেনের বেডিং বিছানো রাজীব টাকাটি পেয়েছেন বলে স্বীকার করেন। এছাড়াও এ রকম কাজ আর কখনও করবেন না মর্মে মুচলেকা দেন।  

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার রতন কুমার চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, ঘটনা শুনেই আমি সবাইকে ডেকে আমার রুমে নিয়ে আসি। এক ঘন্টার মধ্যে টাকা দিতে বলি। বেডিং বিছানো রাজীব টাকা নিয়েছে বলে স্বীকার করেন। পরে আমি সুপারভাইজারের সঙ্গে যোগাযোগ করে যথাযথ মানুষটিকে টাকা ফেরত দেই।  

তিনি আরও বলেন, এসব বিষয়ে আমরা বিন্দু পরিমাণ কাউকে ছাড় দেইনা। রেলওয়ের সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর।  

তূর্ণা-নিশিতা ট্রেনের সুপারভাইজার বাংলানিউজকে বলেন, প্রায় সময় অনেক যাত্রী অনেক কিছু ট্রেনে রেখে চলে যান। আমরা সেটি সংরক্ষণ করে রাখি। পরে যথাযথ মানুষকে ফেরত দেই। কিন্তু এক বেডিং বিছানো লোক লোভে পড়ে টাকাটা রেখে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু আমাদের কঠোর অবস্থানে টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হয়। সে এ রকম কাজ আর করবে না মর্মে মুচলেকা দিয়েছেন।  

বৃদ্ধা হোসনে আরা বেগমের ছেলে মো. জাহেদ হাসান বাংলানিউজকে বলেন, টাকা ফেরত পাবো কখনো ভাবিনি। কিন্তু স্টেশন ম্যানেজার আমাদেরকে আশ্বস্ত করেছিলেন। আমার বৃদ্ধ মা রেলওয়ের এমন ব্যবস্থাপনায় মুগ্ধ হয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩০ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২২
বিই/টিসি
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa