ঢাকা, সোমবার, ১২ আশ্বিন ১৪২৮, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮ সফর ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

লাল আভায় সৌরভ ছড়াচ্ছে ‘হেলিকনিয়া’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩১৫ ঘণ্টা, জুলাই ২৬, ২০২১
লাল আভায় সৌরভ ছড়াচ্ছে ‘হেলিকনিয়া’

চট্টগ্রাম: সবুজ পাতার আড়ালে লাল আভা। এ যেন লাল সবুজের চুড়ান্ত রসায়ন।

বলছি বলিভিয়ার জাতীয় ফুল ‘হেলিকনিয়া’র কথা। প্রথম দেখাতেই যে কারো নজর আটকাবে এই ফুলে। অনেকের কাছে এ ফুল অচেনা। তবে, সৌন্দর্য দেখে ছুটে যান সকলেই।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) ঘুরতে এসে অনেকের চোখ থমকে যায় এ ফুলের সৌন্দর্যে। নানা পরিচর্যায় এ বিদেশি জাতের ফুল গাছ ঠিকিয়ে রেখেছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
ফুলটি দেখতে অনেকটাই কলাবতী ফুলের মতো। তাই কেউ কেউ  কলাবতী ফুল বলেই ডাকেন। পাতা দেখতে কলা গাছের মতো।  

ফুলটির দ্বিপদী নাম- Heliconia Rostrata, ইংরেজি নাম- Hanging Lobster Claw or False Bird of Paradise। এটি হেলিকনিয়াসি পরিবারের একটি উদ্ভিদের প্রজাতি।  

এ ফুল গাছের আদি নিবাস পেরু, বলিভিয়া, কলম্বিয়া ও ইকুয়েডর। এটি বলিভিয়ার জাতীয় ফুল। ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিনাল প্ল্যান্ট গার্ডেনে রূপের মাধুর্য ছড়াচ্ছে বিদেশি এই হেলিকনিয়া।
এরা ক্রান্তীয় আমেরিকার প্রজাতি। গাছ প্রায় ৪ মিটার পর্যন্ত উঁচু ও খাড়া হয়। পাতা কলাগাছের পাতার মতো, লম্বা ডাটার আগায় আয়তকার ফলক। মঞ্জরিপত্র বড়, নৌকাকার, লাল। ঝুলন্ত মঞ্জরিধর এই প্রজাতিটির মঞ্জরিপত্র উজ্জ্বল লাল। ফুলের মধু হামিংবার্ডসহ অনেক পাখির প্রিয়। বলিভিয়ার স্থানীয় নাম পাটুজু।
ভেটেরিনারি ও অ্যানিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) খলিলুর রহমান বলেন,  হেলিকোনিয়াকে বলা হয় স্বর্গের পাখি। ঝুলন্ত মঞ্জরিগুলোকে স্বর্গের পাখির (বার্ড অব প্যারাডাইজ) সঙ্গে তুলনা করা হয়। এটি বিদেশি ফুল হলেও বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে সৌখিন বাগানিরা এর আবাদ শুরু করেছেন। ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এটি কয়েক বছর আগে লাগানো হয়েছে, গত বছর থেকে ফুল দিচ্ছে। ফুল ফোটার পর প্রায় দুই মাস সতেজ থাকে।

ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিনাল প্ল্যান্ট গার্ডেনের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ড. একেএম সাইফুদ্দীন। তিনি এ ফুল গাছটি লাগিয়েছিলেন। এ ছাড়াও ক্যাম্পাসে তিনি দুটি বাগান তৈরি করছেন।  
ড. একেএম সাইফুদ্দীন বাংলানিউজকে জানান, সৌন্দর্য্যের জন্যই এ ফুল বাগান করা হয়েছে ছিল। এখন তা পূর্ণতা পেয়েছে। দেশি বিদেশি অনেক ফুল ফুটছে বাগানে। বাগানের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও শিখতে পারছে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩১৩ ঘণ্টা, জুলাই ২৬, ২০২১
এমএম/টিসি
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa