ঢাকা, শুক্রবার, ৯ আশ্বিন ১৪২৮, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫ সফর ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

নিজস্বতায় টিকে থাকবে একুশে পত্রিকা: তথ্যমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১২০ ঘণ্টা, জুলাই ২৩, ২০২১
নিজস্বতায় টিকে থাকবে একুশে পত্রিকা: তথ্যমন্ত্রী

চট্টগ্রাম: একুশে পত্রিকা নিজস্বতা ও সাংবাদিকতায় টিকে থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

একুশে পত্রিকার অনলাইন সংস্করণের ৫ম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে সম্পাদক আজাদ তালুকদার ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে গেলে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর দেওয়ানজি পুকুর পাড়স্থ মন্ত্রীর বাসভবনে এই সাক্ষাৎ হয়।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, অনেক পত্রিকা ঢাকঢোল পিটিয়ে আসে, কিন্তু নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে না পেরে একসময় হারিয়ে যায়।

‘সেই তুলনায় একুশে পত্রিকা ভালো করছে। ছোট থেকে বড় হচ্ছে। অনলাইন ও প্রিন্ট–দুই মাধ্যমে সাংবাদিকতার যে বার্তা, যে লক্ষ্য সেই লক্ষ্যে তারা এগিয়ে যাচ্ছে। ’

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ একুশে পত্রিকার সাফল্য কামনা করেন এবং দেশ গঠনে নিরবচ্ছিন্ন ভূমিকা ধরে রাখার আহ্বান জানান।

এ সময় একুশে পত্রিকা সম্পাদক আজাদ তালুকদার বলেন, সাংবাদিকতার চিরন্তন উজ্জ্বল্যের মাঝেও দেশের সাংবাদিকতা নিয়ে থেমে থেমে বহুবিধ প্রশ্নের জন্ম হয়, এজেন্ডাভিত্তিক সাংবাদিকতা কিংবা আত্মপ্রতিষ্ঠা, প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির সাংবাদিকতার অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে পাঁচবছর আগে এমন দিনে একুশে পত্রিকার অনলাইন সংস্করণের পেশাদারী যাত্রা শুরু হয়।

‘সাংবাদিকতার প্রকৃত যে রূপ, যে আদর্শ, চিন্তন কিংবা বলিষ্ঠ চেহারা; মোটা দাগে সেই চেহারাটাই ফিরিয়ে আনার সাংবাদিকতা আমরা শুরু করেছিলাম সৎ, সত্য, সৃষ্টি, সুন্দরের অনুক্ষণ বাতাবরণে। কিছু কিছু করপোরেট সাংবাদিকতার উদ্দেশ্যমূলক যাত্রা-অভিযাত্রার অভিঘাতজনিত বোবাকান্না, কালো টাকা সাদা করতে কদর্য-গন্ধময় সাংবাদিকতার উত্থান, আরও আরও পাবার, গ্রাস করবার উদগ্র বাসনা কিংবা মিলিয়নকে বিলিয়ন-ট্রিলিয়নে রূপান্তরের অসম-অদ্ভুত সাংবাদিকতার গল্প-প্লটের ভিড়ে আমাদের যাত্রা ছিল ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র। সেই ক্ষুদ্র অবস্থান থেকে আমরা পথ চলেছি, চলছি একেবারে নিরেট, নির্মোহ অবস্থান থেকে, সাংবাদিকতার প্রকৃত রূপ-রস, গন্ধ, চরিত্র ধারণ করে। ’

‘এই চেষ্টা সম্ভব হয়েছে বা হচ্ছে আমাদের চাওয়া-চাহিদা-ক্ষুধাকে নির্লোভের শক্তিশালী দড়িতে আষ্ঠেপৃষ্ঠে বেঁধে রাখার অনুক্ষণ দৃঢ়তায়। আমরা হলফ করে বলতে পারি, যে কোনো মূল্যে সুস্থ সাংবাদিকতার বাইরে আমাদের আর কোনো চাওয়া নেই। নেই অসৎ উদ্দেশ্য, কিংবা, 'ব্যবসায়িক' অভিপ্রায়। এই চর্চা, অনুশীলন জীবনের শেষদিন পর্যন্ত বজায় রাখতে চাই- এটাই আমাদের একমাত্র পণ, মরণপণ আকুলতা। ’ যোগ করেন একুশে পত্রিকা সম্পাদক।

বাংলাদেশ সময়: ০১১৮ ঘণ্টা, জুলাই ২৩, ২০২১
এসি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa