ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সুচিন্তার ভূমিকা অগ্রণী: আবদুল গাফফার চৌধুরী

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৯ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০২১
জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সুচিন্তার ভূমিকা অগ্রণী: আবদুল গাফফার চৌধুরী সুচিন্তার ওয়েবিনার আলোচনা

চট্টগ্রাম: জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সুচিন্তার ভূমিকা অগ্রণী বলে মন্তব্য করেছেন প্রখ্যাত সাংবাদিক, সাহিত্যিক ও কলামিস্ট আবদুল গাফফার চৌধুরী।  

সুচিন্তা চট্টগ্রাম আয়োজিত এক ওয়েবিনার আলোচনায় সম্প্রতি বিভিন্ন মাদ্রাসায় সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে জিনাত সোহানা চৌধুরীর নেতৃত্বে জাতীয় সংগীত পরিবেশন, জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জয় বাংলা স্লোগান, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের সচেতন করা, শপথ করানো, মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলা এসব কার্যক্রম সম্পর্কে এ মন্তব্য করেন তিনি।

বিশেষ করে জিনাত সোহানা চৌধুরীর মাদ্রাসায় জয় বাংলা স্লোগান ও জাতীয় সংগীত পরিবেশনের চ্যালেঞ্জিং কাজকে সবচেয়ে কঠিন জিহাদ আখ্যা দেন আবদুল গাফফার চৌধুরী।  

ওয়েবিনার আলোচনায় সংযুক্ত ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা এসএম কামাল হোসেন, ইসলামী ঐক্য জোটের চেয়ারম্যান মিসবাউর রহমান চৌধুরী ও সাবেক ছাত্রনেতা, আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ বড়ুয়া l 

সুচিন্তা চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট জিনাত সোহানা চৌধুরীর সঞ্চালনায় এ ওয়েবিনার আলোচনায় জঙ্গিবাদ, ধর্মীয় উগ্রপন্থা ও সহিংসতার বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট নিয়ে আলোচনা করেন অতিথিরা।

এসএম কামাল হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী রাজনৈতিক নেতৃত্ব ও প্রজ্ঞার কারণে সহিংস ধর্মীয় গোষ্ঠীর পরাজয় ঘটেছেl মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একদিকে পরিপূর্ণ ধার্মিক এবং সুগভীর ধর্মীয় মূল্যবোধ লালন করেন অন্যদিকে সম্পূর্ণ অসাম্প্রদায়িকl বাংলাদেশের ইতিহাসে ইসলামের সেবায় সবচেয়ে বেশি কাজ করেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এবং তাঁরই কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাl 

তিনি সারা দেশে মডেল মসজিদ ও ইসলামি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার কথা উল্লেখ করে বলেন, একযোগে এতগুলো মসজিদ নির্মাণ এবং মুসল্লিদের জন্য কল্যাণকর পদক্ষেপ সারা বিশ্বে আর একটিও নেইl 

ইসলামী ঐক্য জোটের চেয়ারম্যান মিসবাউর রহমান চৌধুরী সুচিন্তার জঙ্গিবাদবিরোধী কার্যক্রমে মাদ্রাসার শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দিয়ে সম্পৃক্ত করার ওপর জোর দেন l 

প্রশান্ত ভূষণ বড়ুয়া শ্রীলংকায় বৌদ্ধ ভিক্ষুর হাতে প্রধানমন্ত্রী নিহত ও আনন্দ মার্গীয় সন্ত্রাসীদের হাতে ইন্দিরা গান্ধীর কেবিনেট মন্ত্রী নিহত হওয়ার উদাহরণ দিয়ে বলেন ধর্মীয় চরম পন্থা সব দেশেই বিপর্যয়ের জন্য দায়ী l তিনি পাকিস্তানে প্রথম সামরিক আইন জারি করে মওদুদীর উস্কানিতে সংঘটিত কাদিয়ানী গণহত্যার বিচারের উল্লেখ করেন l

প্রধান অতিথি আবদুল গাফফার চৌধুরী ধর্মীয় উগ্রবাদ দমন, যুদ্ধাপরাধীদের দণ্ডদান ও খুনিদের শাস্তির মতো কঠিন সব রাজনৈতিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সাহস ও নৈতিক শক্তির পরিচয় দেওয়ার জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রশংসা ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন l তিনি সুচিন্তার মতোই অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে রাজনীতির গুণগত পরিবর্তনে পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের মূলধারায় সম্পৃক্ত করার কাজে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৬ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০২১
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa