ঢাকা, শনিবার, ৫ আষাঢ় ১৪২৮, ১৯ জুন ২০২১, ০৮ জিলকদ ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

পটিয়ায় ইফতার মাহফিলে হুইপ সামশুলের ক্যাডার বাহিনীর হামলা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৩৫ ঘণ্টা, মে ১৫, ২০২১
পটিয়ায় ইফতার মাহফিলে হুইপ সামশুলের ক্যাডার বাহিনীর হামলা

চট্টগ্রাম: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চট্টগ্রামের পটিয়াস্থ বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীদের আয়োজিত মাহফিলে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর ক্যাডার বাহিনী।

বৃহস্পতিবার (১৩ মে) বিকেল সাড়ে ৫টায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। তারা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা মো. শাহেদ (৩২), মো. ফোরকান (২২) ও জয় (১৮)।

হামলার শিকার ছাত্ররা অভিযোগ করেন, রমজানের শেষদিন পটিয়া উপজেলার কোলাগাঁও ইউনিয়নের নলান্ধা গরীবুল্লাহ শাহ (রা.) মাজার গেইট এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

তারা অভিযোগ করেন, হুইপ সামশুল হকের অনুসারী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বুলবুল হোসেনের নেতৃত্বে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা মুখ ঢেকে সিএনজি টেক্সিতে করে এসে অতর্কিত হামলা চালায়।

সূত্র জানায়, ঢাকা বিশ্ববদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলমের অনুসারীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা বৃহস্পতিবার ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বদিউল আলম যোগ দেওয়ার আগে সন্ত্রাসীরা অনুষ্ঠানের চেয়ার ও মাইক ভাঙচুর করেছে বলে স্থানীয় সূত্র জানায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বুলুবুলসহ নলান্ধা গ্রামের তিনজন ঘটনার সঙ্গে জড়িত। এরা সবাই স্থানীয় সংসদ সদস্য ও হুইপ সামশুল হকের অনুগত।  

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, পটিয়াস্থ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা ইফতারের আয়োজন করেন। এতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদেরও দাওয়াত ছিল। প্রধান অতিথি বদিউল আলম আছরের নামাজের পর মাজার জিয়ারত করার জন্য গেলে কয়েকটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় এসে সন্ত্রাসীরা চেয়ার ভাঙচুর করে হামলা চালায়, লোকজন এগিয়ে আসলে তারা দ্রুত পালিয়ে যায় বলে তিনি জানান।

এদিকে হামলার বিষয়ে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলমের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বাংলানিউজকে জানান, ইফতার ও দোয়া মাহফিলে হামলার খবর পেয়ে কালারপুল পুলিশ ফাঁড়ির একটি টিম ঘটনাস্থলে যান। তবে তিনি এ বিষয়ে আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

বাংলাদেশ সময়: ০১২৪ ঘণ্টা, মে ১৫, ২০২১
ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa