ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৫ জুন ২০২১, ০৪ জিলকদ ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

করোনাকালে নিজের ও অন্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে: মেয়র রেজাউল

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২০৯ ঘণ্টা, মে ৫, ২০২১
করোনাকালে নিজের ও অন্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে: মেয়র রেজাউল বক্তব্য দেন মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী।

চট্টগ্রাম: করোনা সংক্রমণের তীব্রতার মধ্যেও জীবন জীবিকার চাকা সচল রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রাণান্ত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। সংক্রমণের দ্রুত অবনতিশীল পরিস্থিতিতে লকডাউন প্রলম্বিত করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না।

এ অবস্থায় সাধারণ কর্মজীবী ও নিম্নআয়ের মানুষের দুর্ভোগ ও কষ্ট বেড়েছে।  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দারিদ্র্য বিমোচনের যে ক্ষেত্র-তৈরি করে দিয়েছিলেন, করোনার ছোবলে তার অগ্রযাত্রা আপাতত স্তিমিত হলেও সুন্দর ভবিষ্যৎ, সাফল্য অপেক্ষমাণ। তার আগে আমাদের করোনাযুদ্ধে বিজয়ী হতে হবে। এ জন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি নির্দেশনা মেনে চলা এবং নিজের ও অন্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করা।

বুধবার (৫ মে) উত্তর হালিশহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর অফিস প্রাঙ্গণে ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী এসব কথা বলেন।

কাউন্সিলর মো. ইলিয়াছের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন প্যানেল মেয়র মো. গিয়াসউদ্দীন, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হুরে আরা বেগম, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিমুল ইসলাম মজুমদার, যুগ্ম সম্পাদক আবেদ মনসুর চৌধুরী, আইন বিষয়ক সম্পাদক মো. জানে আলম।  

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফেরদৌস ইসলাম, সুলতান আহমদ, আনোয়ারুল হক জসিম, জাফর সওদাগর, আমির আহমেদ, মো. ইসহাক, জামাল আহমেদ, আশরাফুল আলম, আখতারুজ্জামান মাসুম প্রমুখ।

মেয়র বলেন, এবার পবিত্র রমজান মাসে নামাজ-রোজা এবাদত বন্দেগির মাধ্যমে আত্মশুদ্ধির পাশাপাশি মানবিক কর্তব্য পালনের দায় বর্তেছে। করোনার ছোবলে দারিদ্র্য  ও প্রান্তিক শ্রেণির মানুষের জন্য প্রতি পরিবারে আড়াই হাজার টাকা করে ৩৬ লাখ পরিবারকে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যদিও তা যথেষ্ট নয়, এ জন্যে যেকোনো সংকট মোকাবেলায় সরকারের পাশাপাশি বিত্তবানদের ভূমিকা থাকে। তাই এ দায়িত্ব পালনে বিত্তবান শ্রেণিকে দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানো জন্য নিজ থেকে এগিয়ে আসতে হবে।  
তিনি বলেন, লকডাউন চলাকালীন সিটি করপোরেশনের জরুরি সেবা ও জনগুরুত্বপূর্ণ সমস্যা নিরসন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।  

মেয়র বিকেলে ৪৩ নম্বর সাংগঠনিক ওয়ার্ড কমিটির উদ্যোগে আমিন জুট মিল মাঠে ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি ছিলেন। কাউন্সিলর নুরুল আলমের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন প্যানেল মেয়র মো. গিয়াস উদ্দীন, ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক মো. মালেক, মো. শেখ ফরিদ, ফয়েজ আহমদ ভূঁইয়া, মো. আলমগীর প্রমুখ।  

মেয়র বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের জন্য অনেক কিছু দিয়েছেন এবং আরো দিতে চান। কিন্তু আমাদের মধ্যে চিন্তা ও কর্মের সমন্বয় না থাকায় চট্টগ্রামকে আন্তর্জাতিক মানের আধুনিক ও যুগোপযোগী নগর হিসেবে সাজাতে ব্যর্থ হচ্ছি। যারা চট্টগ্রামের ভালো চান এবং সুন্দর স্বপ্ন দেখেন তাদের পরামর্শ নিয়ে দল-মত নির্বিশেষে অভিন্ন প্লাটফর্ম তৈরি করে চট্টগ্রামকে আধুনিক নগরে রূপান্তর করতে চাই। এর আগে মেয়র ১৯ নম্বর দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ডে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন।
ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. নুরুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য দেন সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহিন আকতার রোজী, আওয়ামী লীগ নেতা শফিউল আজম বাহার, জানে আলম, বখতেয়ার ফারুক, চেঙ্গিস খান, হানিফ মুন্সি, জাহাঙ্গীর আরিফ, জামাল সর্দার প্রমুখ।  

মেয়র বলেন, করোনার ঢেউ মোকাবেলায় লকডাউন কঠোরভাবে পালন করতে পারলে সংক্রমণ ও মৃত্যুহার কমে আসবে। এ জন্য আমাদের মনোবল, সাহস ও দৃঢ়তার সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি নির্দেশনা মেনে চলার পাশাপাশি ধর্মীয় সামাজিক দায়বদ্ধতাও পালন করতে হবে। এভাবেই আমরা সংকট থেকে মুক্তি পেতে পারি।  

বাংলাদেশ সময়: ২২০৭ ঘণ্টা, মে ০৫, ২০২১
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa