ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মাঘ ১৪২৭, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং সেন্টার নির্মাণকাজ উদ্বোধন করলেন পলক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০০ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২০
শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং সেন্টার নির্মাণকাজ উদ্বোধন করলেন পলক নির্মাণকাজ উদ্বোধন করেন জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি: উজ্জ্বল ধর

চট্টগ্রাম: নগরের চান্দগাঁওয়ে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শনিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে চান্দগাঁও সিএন্ডবি এলাকায় সিটি করপোরেশনের ১ দশমিক ৭১ একর জায়গায় ৬ তলা বিশিষ্ট প্রায় ৬ হাজার বর্গফুটের এই আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তিনি।

এই সময় শিক্ষা উপ-মন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমদ, চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, প্রকল্প পরিচালক মো. মোস্তফা কামালসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।  

শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মাণকাজের উদ্বোধন শেষে জুনাইদ আহমেদ পলক প্রকল্প এলাকায় আয়োজিত সমাবেশে যোগ দেন।  স্থানীয় সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে পলক বলেন, শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার চট্টগ্রামবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর এক অনন্য উপহার। এতে একদিকে যেমন বেকারত্ব দূর হবে, একই সাথে তথ্যপ্রযুক্তিতে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন বৃদ্ধি পাবে।

তিনি বলেন, আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার থেকে বের হয়ে তরুণ উদ্যোক্তারা আইটি ইন্ডাস্ট্রিতে যেন ব্যাপক পরিসরে কাজ করতে পারেন সে লক্ষ্যে একই জায়গায় একটি হাইটেক পার্ক স্থাপনের কাজও শীঘ্রই শুরু হবে। সনদ নির্ভর না হযে দক্ষতা নির্ভর হতে হবে।

পলক বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রতিযোগিতা মোকাবিলায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আইওটি, রোবোটিক্স, সাইবার সিকিউরিটিসহ উচ্চপ্রযুক্তি নিয়ে কাজ করার লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর স্থাপন করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে বর্তমানে চুয়েটে আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর স্থাপনের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে।  

এছাড়া সিংগাপুর-ব্যাংকক মার্কেটের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণের মাধ্যমে একটি সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এই প্রকল্পগুলো বাস্তবায়িত হলে বন্দরনগরী ও দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম আইটি বিজনেস হাব হিসেবে গড়ে উঠবে।

বিএফআইডিসি রোডে সিটি করপোরেশনের ১১ দশমিক ৫৫১ জায়গা রয়েছে। পুরো জায়গায় ২০২১ সালের জুনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ হাইটেক পার্ক গড়ে তোলা হবে। এ লক্ষ্যে ২০১৯ সালের ১১ মার্চ সিটি করপোরেশন এবং বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমাঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়। চুক্তির আওতাভুক্ত জায়গার মধ্যেই শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টারটি নির্মাণ করা হচ্ছে।  

গত আগস্ট মাসে এ সেন্টার নির্মাণে সিটি করপোরেশন থেকে ১ দশমিক ৭১ একর জায়গা বুঝে নেয় হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ। চুক্তির খসড়া থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, হাইটেক পার্ক নির্মাণে সম্পূর্ণ অর্থ ব্যয় করবে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ। তিন বছরের মধ্যে শেষ হবে নির্মাণ কাজ। লভ্যাংশ চসিক ও হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ৫০ শতাংশ করে পাবে।

২০১৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টার’ স্থাপন (দ্বিতীয় সংশোধিত) প্রকল্পের অনুমোদন দেয় একনেক। ৪৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকায় চট্টগ্রামে ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টার’ নির্মাণে ‘হোসেন কনস্ট্রাকশন প্রাইভেট লিমিটেড’কে নির্মাণে চূড়ান্ত করা হয়। প্রকল্পের মেয়াদ আছে ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে আইটি বিষয়ে বছরে চট্টগ্রামের প্রায় ২ হাজার শিক্ষার্থী বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ পাবেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১২৫৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২০
এমআর/এসি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa