ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মাঘ ১৪২৭, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

হেফাজতে ইসলাম

পাল্টা কমিটির চেষ্টায় বঞ্চিতরা, পদধারীরা বলছেন মাথাব্যথা নেই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৭, ২০২০
পাল্টা কমিটির চেষ্টায় বঞ্চিতরা, পদধারীরা বলছেন মাথাব্যথা নেই

চট্টগ্রাম: নানা কারণে আলোচনায় থাকা হেফাজতে ইসলামের শীর্ষনেতাদের মধ্যে বিরোধ বহুদিন ধরে। শুরু থেকেই নিজেদের অরাজনৈতিক দাবি করলেও রাজনীতির যেন কমতি নেই দেশের কওমিপন্থী আলেমদের এই সংগঠনে।

 

হেফাজত ইসলামের সদ্য প্রয়াত আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুর পর সংগঠনটির কাউন্সিলে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনে শফিপুত্র আনাস মাদানীপন্থীরা বাদ পড়ায় পাল্টা কমিটি দেওয়ার চিন্তা করছেন পদবঞ্চিতরা। তবে এ ব্যাপারে কোনো মাথাব্যথা নেই বলে জানিয়েছেন বর্তমান কমিটির পদধারী নেতারা।  

নতুন কমিটিতে স্থান না পাওয়া আনাস মাদানীপন্থী হিসেবে সরব হেফাজতে ইমলামের সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মাঈনুদ্দীন রুহী বাংলানিউজকে বলেন, পদবঞ্চিত সবার সঙ্গে আলোচনা চলছে। সকলের মতামতের ভিত্তিতে নতুন কমিটি গঠনের বিষয়ে চিন্তা করা হচ্ছে। তবে বিষয়টি এখনও আলোচনার পর্যায়ে।  

সদ্য শেষ হওয়া কাউন্সিলে হেফাজত ইসলামের সাবেক কমিটির কতজন সদস্য বাদ পড়েছেন জানতে চাইলে মাওলানা রুহী বলেন, গত কমিটিতে ছিলেন এমন ৭০ জনকে বাদ দেওয়া হয়েছে। গতকাল বাদ পড়াদের নিয়ে ঢাকায় একটি মিটিং হয়। নতুন কমিটি গঠনের ব্যাপারে ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে।  

তবে বাদ পড়াদের সংখ্যা নিয়ে রূহীর তথ্য সঠিক নয় বলে দাবি করেছেন সদ্য গঠিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, আমরা কাউকে বাদ দেইনি। তারা নিজেদের কর্মকাণ্ডে বাদ পড়ার মতো পরিবেশ তৈরি করেছেন। জানা মতে ৬ জন বাদ পড়েছেন। যদি এর চেয়ে বেশি কেউ বাদ পড়ে থাকেন তাদের তালিকা প্রকাশ করতে বলুন। হেফাজতে ইসলাম একটি বৃহৎ সংগঠন। এখানে যারা দায়িত্বে আছেন সকলেই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার চেষ্টা করেন।  

পদবঞ্চিতরা নতুন করে কমিটি ঘোষণা করলে আপনাদের পদক্ষেপ কি হতে পারে এমন প্রশ্নে ইসলামাবাদী বলেন, বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ। প্রত্যকের একটি নাগরিক অধিকার আছে। আমরা এতে বাধা দেবো কেন? হেফাজতের নেতাকর্মী, আলেমরা আমাদের সঙ্গে আছেন। নতুন কমিটি গঠনের ব্যাপারে আমাদের কোনো মাথাব্যথা নেই।

পদবঞ্চিতদের কাউন্সিলে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সবাইকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। কিন্তু কয়েকজন কাউন্সিলে আমন্ত্রণ পাওয়ার আগেই মিডিয়ায় হেফাজতের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন। যখন সংগঠনের বিরুদ্ধে কেউ অবস্থান নেয় তখন কমিটিকে চিন্তা করতে হয়।

বাদ পড়াদের কমিটিতে স্থান দেওয়ার ব্যাপারে বা কমিটি বর্ধিত করার কোনো পরিকল্পনা আছে কিনা জানতে চাইলে বিষয়টি কেন্দ্রীয় কমিটির মতামতের ওপর ছেড়ে দেন মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪০ঘণ্টা, নভেম্বর ১৭, ২০২০
এমএম/এমআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa