ঢাকা, সোমবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ সফর ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

বেসরকারি হাসপাতাল নিয়ে কঠোর হচ্ছে স্বাস্থ্য প্রশাসন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০১ ঘণ্টা, আগস্ট ৭, ২০২০
বেসরকারি হাসপাতাল নিয়ে কঠোর হচ্ছে স্বাস্থ্য প্রশাসন সেবা কার্যক্রম যাচাই করতে ঝটিকা পরিদর্শন স্বাস্থ্য বিভাগের।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামে বেসরকারি হাসপাতাল এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টার নিয়ে কঠোর হচ্ছে স্বাস্থ্য প্রশাসন। এরইমধ্যে হাসপাতাল এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোর অনিয়ম খুঁজে বের করতে ‘সারপ্রাইজ ভিজিট’ শুরু করেছেন চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য বিভাগের কর্তাব্যক্তিরা।


করোনা পরিস্থিতির পর থেকে চট্টগ্রামের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়। রুগ্ন প্রায় এই খাতে তদারকি বাড়াতে স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে গত কয়েকমাসে গঠিত হয় একাধিক কমিটি।  


এইসব কমিটির তদারকির মধ্যে এবার স্বাস্থ্য বিভাগও হাসপাতাল এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে মনিটরিং শুরু করেছে।  


বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোর কার্যক্রম পরিদর্শনে যান বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক এবং জেলা সিভিল সার্জন।  


এ সময় দুই ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং এক হাসপাতালে বিভিন্ন অনিয়ম চোখে পড়লে মৌখিকভাবে প্রতিষ্ঠানগুলোকে সতর্ক করা হয়।


নগরের পাঁচলাইশ এলাকার ‘ঈগলস্ আই ডায়াগনস্টিক সেন্টার’ এ রেডিওলজি বিভাগে সনদধারী টেকনোলজিস্ট না থাকায় প্রতিষ্ঠানটির এক্স-রে সেবা কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়।  


অন্যদিকে হালিশহরের ‘অর্গান ডায়াগনস্টিক সেন্টার’ এ পরীক্ষা হয় না এমন টেস্টের নাম সম্বলিত তালিকা ঝুলিয়ে রাখায় তা সংশোধন করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়। অন্যথায় প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়।  


এছাড়া জরুরি বিভাগ স্থাপনে যেসব শর্ত মানতে হয়- তা না মানায় করোনার চিকিৎসা সেবা দেওয়া আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালকেও মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়।  


আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সবকিছু ঠিক করে জরুরি বিভাগ চালু করতে মা ও শিশু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।  


এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বাংলানিউজকে বলেন, চট্টগ্রামে বেসরকারি হাসপাতাল এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোকে কঠোর নজরদারির আওতায় আনছে স্বাস্থ্য বিভাগ।  


‘কোনো হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে কোনো রকম অনিয়ম ধরা পড়লে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’


চট্টগ্রামের বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির বাংলানিউজকে বলেন, হাসপাতাল এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোর কার্যক্রমে কোনো অনিয়ম হচ্ছে কিনা তা নিয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  


তিনি বলেন, গতকালও নগরের বেশ কয়েকটি হাসপাতাল এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিদর্শন করা হয়েছে। দুটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং একটি হাসপাতালকে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়েছে।


‘চট্টগ্রামের হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোর স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম যাচাই করতে ঝটিকা পরিদর্শন অব্যাহত রাখবে স্বাস্থ্য বিভাগ। কোনো অবস্থাতেই স্বাস্থ্য সেবার বিষয়ে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। ’ 


বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৭, ২০২০
এমএম/এমআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa