ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৭, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

সমালোচনায় ভয় পাই না, আমি অসৎ হবো না : সুজন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪৮ ঘণ্টা, আগস্ট ৬, ২০২০
সমালোচনায় ভয় পাই না, আমি অসৎ হবো না : সুজন চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন

চট্টগ্রাম: আমি সমালোচনাকে ভয় পাই না। কাজ করতে গিয়ে আমার ভুল হতে পারে।

কিন্তু আমি অসৎ হবো না।  

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) সকালে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) প্রশাসকের দায়িত্ব নিয়ে খোরশেদ আলম সুজন সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

সরকারের বাস্তবায়নাধীন মেগা প্রকল্পগুলোর কথা তুলে ধরে চসিক কর্মকর্তাদের উদ্দেশে সুজন বলেন, যার যেটা দায়িত্ব আপনারা সেটি পালন করবেন। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে এ শহর সিঙ্গাপুরের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শহরে পরিণত হতে যাচ্ছে। যখন ইঞ্চি হিসেবে জায়গা বিক্রি হবে। যারা দুর্নীতি করেছেন আজ বিসমিল্লাহ বলে তওবা করে ফেলেন। আমি যার কাছে অনিয়ম দেখবো, দুই নাম্বারি দেখবো আমার সঙ্গে মানুষের সঙ্গে নগরবাসীর সঙ্গে বেইমানি, বিশ্বাসঘাতকতা করবেন তাদের ক্ষমা করবো না। ভুল করাটা অপরাধ নয়, ভুল স্বীকার করবেন। ভুলের হিমালয় তৈরি করতে কাউকে দেওয়া হবে না। যার যেটা দায়িত্ব সুন্দরভাবে পালন করবেন।

জিপিওর সামনে আমি ময়লা দেখতে চাই না। বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় মেয়র ডোর টু ডোর চালু করেছেন। বিন দিয়েছেন ঘরে ঘরে ময়লা ফেলার জন্য। সেই বিনে চাল, ডাল রাখতে দেখেছি অনেক ঘরে! যেদিন বৃষ্টি হবে আমি আপনাদের সঙ্গে থাকবো। আমি মহিউদ্দিন চৌধুরীর কর্মী। ফাঁকি দেওয়া চলবে না।

তিনি বলেন, সাংবাদিকরা পৃথিবীর প্রাণ। আপনার যন্ত্র মানুষের কল্যাণে কাজে লাগান। কোথায় সমস্যা আছে পজেটিভলি তুলে ধরেন। আমি সমালোচনাকে ভয় পাই না। এটা অন্তরে ধারণ করি।  

এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, কাউন্সিলররা নেই মানে নেই না। চসিকের সেটআপ আছে। কাউন্সিলররা আড়াল থেকে সহযোগিতা করবেন। প্রশাসক হিসেবে ১৮০ দিন সময়। ইনশাআল্লাহ ১৮০ দিন আমি রাস্তায় থাকবো। কাজ করতে গিয়ে আমার ভুল হতে পারে। সেই ভুল সংশোধন, স্বীকার করার মতো মানসিকতা আমার আছে। স্কুল থেকে ছাত্ররাজনীতি শুরু করেছি। আমি প্রতিমুহূর্ত কাজ করার চেষ্টা করবো। জনস্বাস্থ্য রক্ষায় পচাবাসি ফলমূল খাবার যাতে বিক্রি করতে না পারে সে উদ্যোগ নেবো। আগে পুকুরে নামতে দিন তারপর দেখেন কীভাবে সাঁতার দিই।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজেই এ শহরের দায়িত্ব নিয়েছেন। আমি নতুন কোনো প্রকল্প নেবো না। আগের প্রকল্পগুলো এগিয়ে নেবো।

এ সময় চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা, সচিব আবু শাহেদ চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমেদ, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মুফিদুল আলম, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া, স্পেশাল ম্যাজেস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা জজ) জাহানারা ফেরদৌস, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা বেগম নেলী, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, রাজস্ব কর্মকর্তা সাহেদা বেগম, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম, প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মো. সাইফুদ্দিন, অতিরিক্ত প্রধান হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবিরসহ বিভাগীয় ও শাখা প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

চসিকের পঞ্চম নির্বাচিত পরিষদের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের মেয়াদ বুধবার (৫ আগস্ট) শেষ হয়। বৈশ্বিক মহামারী করোনা, বর্ষায় চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা, পাহাড়ধসের আশঙ্কা থাকায় নির্দিষ্ট সময়ে নির্বাচন না হওয়ায় খোরশেদ আলম সুজনকে চসিকের প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

>> চসিক প্রশাসকের চেয়ারে সুজন

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪১ ঘণ্টা, আগস্ট ০৬, ২০২০
এআর/টিসি
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa