ঢাকা, রবিবার, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ সফর ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

বিশপ সব শ্রেণি-পেশার মানুষের শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২৫ ঘণ্টা, জুলাই ১৪, ২০২০
বিশপ সব শ্রেণি-পেশার মানুষের শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন বিশপ সব শ্রেণি-পেশার মানুষের শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন

চট্টগ্রাম: আর্চবিশপ  মজেস এম কস্তা খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের ধর্মগুরু হলেও তিনি চট্টগ্রামের সব ধর্মের, সব  শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছে শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) নগরের পাথঘাটার জপমালা রাণী ক্যাথিড্রাল গির্জায় শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের বিশপের মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র।

হাজারো মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে চিরনিদ্রায় শায়িত হন চট্টগ্রামের আর্চ বিশপ ও খ্রিস্টান সমাজের প্রধান ধর্মগুরু মজেস এম কস্তা।

এ সময় মেয়র আর্চ বিশপের বর্ণাঢ্য ও শুদ্ধাচারী জীবনাচারণের কথা উল্লেখ করে বলেন, তিনি ছিলেন একজন সর্বজনীন সাম্য-মৈত্রী-কল্যাণের মঙ্গলালোক বর্তিকা। এ অসাম্প্রদায়িক চেতনার ধর্মগুরু চট্টগ্রামে শিক্ষা, চিকিৎসাসহ সেবামূলক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডেও নিজেকে জড়িত রেখেছিলেন। তার মৃত্যুতে চট্টগ্রামবাসী একজন সর্বজন স্বীকৃত সমাজসেবক হারালো।

এ সময় চসিক কাউন্সিলর ইসমাইল বালী, হাসান মুরাদ বিপ্লব, জহর লাল হাজারী, শৈবাল দাশ সুমন, মো. জাহাঙ্গীর আলম, আনিসুর রহমান ইমন, পুলক খাস্তগীর ও গোপাল দাশ টিপু উপস্থিত ছিলেন।

সেবক কলোনির নির্মাণকাজ পরিদর্শন

মেয়র পাথরঘাটা ওয়ার্ডের বান্ডেল  রোড সেবক কলোনিতে ১৪ তলা ৩টি নির্মাণাধীন ভবনের বাকি কাজ ২০ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ করার জন্য ঠিকাদার ও সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

মেয়র বলেন, এ আবাসন প্রকল্পের ৫৫৯টি ফ্ল্যাট শিগগির পরিচ্ছন্ন কর্মী পরিবারের কাছে হস্তান্তরের মধ্য দিয়ে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের ক্ষেত্রে নতুন যুগের সূচনা ঘটবে।

তিনি জানান, বান্ডেল রোড সেবক কলোনিতে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে তিনটি বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হওয়ার পাশাপাশি নগরীতে চসিকের আরও তিনটি সেবক কলোনিতে বহুতল আবাসিক ভবন নির্মাণ কাজ সমাপ্তির পথে। এভাবে সব পরিচ্ছন্ন কর্মীর মাথাগোঁজার ঠাঁই তৈরি করে দিয়ে মানুষের অন্যতম একটি প্রধান মৌলিক অধিকার বাসস্থানের চাহিদা পূরণ করতে আমি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

চসিকের পরিচ্ছন্ন বিভাগের ৩ হাজার ৬৩৯ জনের আবাসনের চাহিদার তুলনায় তা পূরণ করার সামর্থ্য অপ্রতুল। তারপরও যারা নগরকে পরিচ্ছন্ন রাখছেন তাদের বাসস্থানের চাহিদা পূরণের বিষয়টিকে আমি অগ্রাধিকার দিই। সেবক কলোনিতে নির্মিতব্য আবাসন কমপ্লেক্সে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র, চিত্তবিনোদন কেন্দ্র ও প্রার্থনার উপাসনালয় থাকবে।

পরিদর্শনকালে চসিক কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমদ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মনিরুল হুদা, ঝুলন কান্তি দাশ, নির্বাহী প্রকৌশলী ফরহাদুল আলম, সহকারী প্রকৌশলী সালমা খাতুন, উপ প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম, উপসহকারী প্রকৌশলী রিফাতুল করিম, তানজিম ভূইয়া, বান্ডেল  হরিদাস যুবকল্যাণ সংঘের জগনাথ দাশ ঝর্না, সাধন দাশ, ডালিম দাশ ও অমর দাশ উপস্থিত ছিলেন।

সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

বিকেলে চসিক নগর ভবনের কনফারেন্স হলে সরকারের স্থানীয় সরকার বিভাগ পরিচালিত ইউএনডিপি ও ইউকে-এইডের পক্ষ থেকে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেন মেয়র।

এ সময় চসিক প্যানেল মেয়র ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম, আইটি অফিসার মো. ইকবাল হাসান, মেমন মাতৃসদন হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. প্রীতি বড়ুয়া, মো. সাইফুর রহমান চৌধুরী, মো. হানিফ, কোহিনুর আক্তারসহ এলআইইউপিসি প্রকল্পের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৯ ঘণ্টা, জুলাই ১৪, ২০২০
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa