ঢাকা, বুধবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ সফর ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

করোনা পরীক্ষার নমুনা জটে ‘ক্ষতিগ্রস্ত’ সিএমপি-র‌্যাব

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩১ ঘণ্টা, জুন ৩০, ২০২০
করোনা পরীক্ষার নমুনা জটে ‘ক্ষতিগ্রস্ত’ সিএমপি-র‌্যাব সিএমপি ও র‌্যাবের লোগো

চট্টগ্রাম: করোনার শুরু থেকে মাঠ পর্যায়ে কাজ করে আসছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সদস্যরা। করোনার সংক্রমণ রোধ ও মোকবিকায় কাজ করতে গিয়ে সবচয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। করোনায় আক্রান্ত হয়ে বেশ কয়েকজন সদস্য মারাও গেছে।

করোনা আক্রান্ত হয়ে যারা সুস্থ হয়েছেন তারা ফের যোগ দিয়েছেন কাজে। নেমে পড়েছেন করোনা মোকাবিলায়।

কিন্তু অনেক সদস্য নমুনা জমা দিলেও পরীক্ষার রিপোর্ট পেতে দেরি হওয়ায় তারা সঠিক চিকিৎসা নিতে পারছেন না। নমুনা দেওয়ার পর থেকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা এসব সদস্যদের কাজে ব্যবহার করা যাচ্ছে না।

সিএমপি সূত্রে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত সিএমপির মোট সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫৯ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ১৪৭ জন এবং মারা গেছেন ৩ জন সদস্য। ২০৯ জন পুলিশ সদস্য চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

করোনা উপসর্গ থাকায় সিএমপির আরও ৫০০ সদস্য পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছেন। এসব সদস্য বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। এদের অনেকে নমুনা দিয়েছেন ১৭-১৮ দিন হয়ে গেছে যারা এখনও নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাননি। সাধারণ নিয়মকানুন মেনে চললেও সঠিক চিকিৎসা দেওয়া যাচ্ছে না এসব পুলিশ সদস্যকে।

১৭-১৮ দিন আগে উপসর্গ থাকলেও বর্তমানে অনেকে সুস্থ রয়েছেন। কিন্তু তারা করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন নাকি সাধারণ জ্বর-সর্দি তা নিশ্চিত হতে না পারায় তাদের কাজেও যোগদান করানো যাচ্ছে না।

সিএমপিতে এমনিতে ফোর্স সংকট তার মধ্যে এতজন সদস্য একসঙ্গে কাজের বাইরে থাকায় অনেক জরুরি কাজে ব্যাঘাত ঘটছে সিএমপির।

সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (জনসংযোগ) মোহাম্মদ আবুবকর সিদ্দিক বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের ৫০০ সদস্যের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাইনি। এদের অনেকে নমুনা দিয়েছেন ১৭-১৮ দিন হয়ে গেছে। তারা করোনা আক্রান্ত কী না নিশ্চিত না সঠিক চিকিৎসা দেওয়া যাচ্ছে না। ১৭-১৮ দিন আগে উপসর্গ থাকলেও বর্তমানে অনেকে সুস্থ রয়েছেন। কিন্তু তারা করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন নাকি সাধারণ জ্বর-সর্দি তা নিশ্চিত হতে না পারায় তাদের কাজেও যোগদান করানো যাচ্ছে না।

এদিকে র‌্যাব-৭ সূত্রে জানা গেছে, র‌্যাব-৭ এর মোট ৮৮ সদস্য করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৫১ জন সদস্য সুস্থ হয়েছেন। র‌্যাবের এলিট হলে আইসোলেশনে আছেন ৩৪ জন সদস্য। র‌্যাব-৭ এখন পর্যন্ত তাদের মোট ৩১৮ জন সদস্যের করোনা পরীক্ষা করায়। এদের মধ্যে ৫৮ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট তারা এখন হাতে পাননি। ৫-৭ দিন পার হয়েছে তাদের নমুনা জমা দেওয়ার। তারা বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। র‌্যাব-৭ এর সদস্যরাও অপরাধ দমন, করোনা মোকাবিলায় কাজ করতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়।

র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মশিউর রহমান জুয়েল বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের ৫৮ জন সদস্যের নমুনার রিপোর্ট পেন্ডিং রয়েছে। তারা হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। রিপোর্ট না পাওয়ায় তারা করোনা আক্রান্ত কী না জানা যাচ্ছে না। ফলে অনেকে সুস্থ হলেও কাজে যোগ দিতে পারছে না।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৯ ঘণ্টা, জুন ৩০, ২০২০
এসকে/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa