bangla news

২০ বেসরকারি হাসপাতালের সেবার তথ্য তলব সার্ভিল্যান্স টিমের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৬-০৪ ৭:১৬:৪১ পিএম
ছবি প্রতীকী

ছবি প্রতীকী

চট্টগ্রাম: ম্যাক্স, সিএসসিআরসহ নগরের ২০ বেসরকারি হাসপাতাল থেকে রোগীর চিকিৎসা সেবা বিষয়ক সব তথ্য তলব করেছে চট্টগ্রামের বিভাগীয় প্রশাসন কর্তৃক গঠিত সার্ভিল্যান্স টিম।

এইসব হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নিজেদের হাসপাতালের শয্যা সংখ্যা, রোগী ভর্তির সংখ্যা, খালি আসনের সংখ্যা, আইসিইউর সংখ্যাসহ দিনে কতজন রোগীকে সেবা দেওয়া হচ্ছে, কতজনকে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে- তা জানাতে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রামে করোনা উপসর্গ কিংবা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতে ‘সক্ষম’ এই ২০ বেসরকারি হাসপাতালকে দিনে একবার এইসব তথ্য সার্ভিল্যান্স টিমের কাছে পাঠাতে চিঠিতে বলা হয়েছে।

সার্ভিল্যান্স টিম যে ২০ হাসপাতালকে তথ্য চেয়ে চিঠি দিয়েছে সেই হাসপাতালগুলোর মধ্যে রয়েছে- জিইসি মোড়ের চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতাল, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল সেন্টার, ওআর নিজাম রোডের রয়েল হাসপাতাল, এশিয়ান হাসপাতাল।

তথ্য চাওয়া হয়েছে- পাঁচলাইশের সার্জিস্কোপ হাসপাতাল, সিএসটিসি, পার্কভিউ হাসপাতাল, ডেল্টা হাসপাতাল, শেভরন হাসপাতাল, মেহেদীবাগের ম্যাক্স হাসপাতাল, ন্যাশনাল হাসপাতাল, আগ্রাবাদের মা ও শিশু হাসপাতাল, খুলশীর ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল, চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতাল, ইউএসটিসি, গোলপাহাডের সিএসসিআর কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে।

এছাড়া মেরিন সিটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, সাউদার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, বিজিসি ট্রাস্ট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এবং ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে রোগীর চিকিৎসা সেবা বিষয়ক তথ্য তলব করেছে সার্ভিল্যান্স টিম।

সার্ভিল্যান্স টিমের সদস্য ও চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ড. বদিউল আলম বাংলানিউজকে জানান, কোনো রোগী যাতে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত না হন, সেই লক্ষ্যে কাজ করছে সার্ভিল্যান্স টিম।

‘ইতোমধ্যে আমরা ২০টি বেসরকারি হাসপাতালকে প্রতিদিন চিকিৎসা সেবা বিষয়ক তথ্য জমা দিতে বলেছি। এর মাধ্যমে কোন হাসপাতালে কত রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন, কতজনকে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে- কেউ চিকিৎসা বঞ্চিত হচ্ছে কি না- তা তদারকি করা সম্ভব হবে।’

তিনি বলেন, সার্ভিল্যান্স টিম গঠিত হওয়ার পর টিমের সদস্যরা বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল পরিদর্শন করছেন। সব বেসরকারি হাসপাতালে অন্যান্য রোগীর চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতের পাশাপাশি কীভাবে করোনা রোগীর চিকিৎসা নিশ্চিত করা যায় তা দেখা হচ্ছে।

সার্ভিল্যান্স টিমের আহ্বায়ক ও চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. মিজানুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, ১৬টি বেসরকারি হাসপাতাল এবং ৪টি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে বুধবার আমরা তথ্য দিতে চিঠি দিয়েছি। আজকেই বেশকিছু তথ্য তারা পাঠিয়েছেন।

‘যে তথ্য আমরা পেয়েছি তাতে দেখা গেছে- হাসপাতালগুলোতে সিট খালি পড়ে আছে। অথচ বাইরে রোগীরা ঘুরে বেড়াচ্ছেন। রোগীরা হয়রানির শিকার হচ্ছেন। সব তথ্য কমপেল করে ব্যবস্থা নেবো আমরা।’

তিনি বলেন, বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে সীমাবদ্ধতা থাকতে পারে। তবে এইসব নিয়ে চুপ করে বসে থাকলে তো হবে না। তাদের এইসব সমস্যার কথা সরকারকে বলতে হবে। সমাধানের পথ খুঁজতে হবে।

‘এই পরিস্থিতিতে তারা চুপ করে বসে থাকবেন। শত শত প্রাইভেট প্রাক্টিশনার ঘরে বসে থাকবেন। রোগীরা বাইরে বাইরে ঘুরবেন। হয়রানির শিকার হবেন। এটা তো মেনে নেওয়া হবে না।’

সার্ভিল্যান্স টিমে মুজিবুল, বাদ পড়লেন ফয়সাল

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী চট্টগ্রামের বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড (করোনা) ও নন কোভিড আক্রান্তদের চিকিৎসা প্রদান সংক্রান্ত সার্ভিল্যান্স টিম থেকে আলোচিত চিকিৎসক নেতা ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরীকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরীর জায়গায় সার্ভিল্যান্স টিমে যুক্ত হয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সার্ভিল্যান্স টিমের আহ্বায়ক ও চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. মিজানুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, সার্ভিল্যান্স টিমে পরিবর্তন এনেছেন বিভাগীয় কমিশনার স্যার।

‘প্রথমে সার্ভিল্যান্স টিমে বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদককে রাখা হলেও এখন তার পরিবর্তে এই সংগঠনের সভাপতি টিমের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।’

গত ৩০ মে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদের সঙ্গে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক মালিকদের বৈঠকে একটি সার্ভিল্যান্স কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

৩১ মে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. মিজানুর রহমানকে আহ্বায়ক এবং সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বিকে সদস্য সচিব করে ৭ সদস্যের একটি সার্ভিল্যান্স কমিটি গঠন করে দেন বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ।

এই কমিটিকে বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড ও নন কোভিড রোগীদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা, সেবা বঞ্চিত মানুষের অভিযোগ গ্রহণ ও নিষ্পত্তি এবং কোনো বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১০ ঘণ্টা, জুন ০৪, ২০২০
এমআর/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-06-04 19:16:41