ঢাকা, রবিবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২২ মে ২০২২, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

আ’লীগের ‘উপদেষ্টা’ সেজে কাউন্সিলরে সমর্থন আদায়!

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৪০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০
আ’লীগের ‘উপদেষ্টা’ সেজে কাউন্সিলরে সমর্থন আদায়! কাউন্সিলর প্রার্থী হাজি নুরুল হক

চট্টগ্রাম: আওয়ামী লীগের কোনো কমিটি বা ইউনিটে সদস্য পদও নেই। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের দলীয় সমর্থন পেতে ফরমে দিয়েছেন মিথ্যা তথ্য, সেজেছেন মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা। আর এ পরিচয়েই বাগিয়ে নিয়েছেন কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের দলীয় সমর্থন।

এমন অভিযোগ চসিকের ৩৫ নম্বর বক্সিরহাট ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর ও আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী হাজি নুরুল হকের বিরুদ্ধে।

মহানগর আওয়ামী লীগ ও ৩৫ নম্বর বক্সিরবিট ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতারা জানিয়েছেন, হাজি নুরুল হক কখনও আওয়ামী লীগের কোনো পদে ছিলেন না এবং তিনি মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাও নন।

কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল হকের ভাই হাজি নুরুল আক্তার মহানগর বিএনপির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতারা। বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন মহানগর বিএনপির উপ-দফতর সম্পাদক মো. ইদ্রিস আলী।

প্রতারণার মাধ্যমে ও মিথ্যা দলীয় পরিচয় ব্যবহার করায় কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল হকের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বরাবর অভিযোগ পাঠিয়েছেন ৩৫ নম্বর বক্সিরবিট ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উল্লাহ বাহাদুর।

ফয়েজ উল্লাহ বাহাদুর বাংলানিউজকে বলেন, প্রতারণার মাধ্যমে ও মিথ্যা দলীয় পরিচয় ব্যবহার করায় কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল হকের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বরাবর অভিযোগ পাঠিয়েছি। তার বিরুদ্ধে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেবো।

তিনি বলেন, নুরুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, হত্যাসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে। বক্সিরহাট এলাকায় মাদক বেচাকেনা চলে তার আশ্রয়ে। এমন খারাপ মানুষ আওয়ামী লীগের দলীয় সমর্থন পাওয়ায় আমরা ব্যথিত হয়েছি।

ফয়েজ উল্লাহ বাহাদুর বলেন, হাজি নুরুল হক কখনও আওয়ামী লীগের কোনো পদে ছিলেন না এবং তিনি মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাও নন। মনোনয়ন ফরমে যে তিনি মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিচয় দিয়েছেন তা ভুয়া। মহানগর আওয়ামী লীগে আলহাজ নুরুল হক নামে একজন উপদেষ্টা আছেন। তার বাড়ি হালিশহর বড়পোল এলাকায়, এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের দলীয় সমর্থন পেয়েছেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বাংলানিউজকে বলেন, হাজি নুরুল হক নামে মহানগর আওয়ামী লীগে কোনো উপদেষ্টা নেই, একজন আছেন তিনি আলহাজ নুরুল হক। বক্সিরহাট ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে যিনি মনোনয়ন পেয়েছেন তিনি আওয়ামী লীগের কেউ নন।

ফয়েজ উল্লাহ বাহাদুর জানান, হাজি নুরুল হক ২০০৫ সালে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করেন।

২০১৩ সালে কাউন্সিলর হাজি নুরুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়। এ মামলায় কারাগারে যান তিনি। পুলিশ এ মামলায় নুরুল হকের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্রও দেয়।

বক্সিরহাট ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর জামাল উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, ২০০৫ সালে আমি যখন আওয়ামী লীগের সমর্থনে ওয়ার্ড কাউন্সিলর নির্বাচনে জয়লাভ করি তখন হাজি নুরুল হক বিএনপির সমর্থনে কাউন্সিলর নির্বাচন করেন।

এ বিষয়ে জানতে কাউন্সিলর প্রার্থী হাজি নুরুল হকের মোবাইল নম্বরে কল করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। তার বাসার ল্যান্ড ফোনে কল করা হলেও সংযোগ পাওয়া যায়নি।

বাংলাদেশ সময়: ২০২২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০
এসকে/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa