ঢাকা, রবিবার, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৩ জুন ২০২১, ০২ জিলকদ ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

বোয়ালখালী ভূমি অফিসে দুর্ব্যবহার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৪৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০
বোয়ালখালী ভূমি অফিসে দুর্ব্যবহার ---

চট্টগ্রাম: বোয়ালখালী উপজেলা ভূমি অফিসে দুর্ব্যবহারের শিকার হয়েছেন বাংলানিউজের কর্মাশিয়াল ম্যানেজার সাজু চৌধুরী। মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলা ভূমি অফিসে এ ঘটনা ঘটে।

নিজের একটি সৃজিত নামজারী খতিয়ানের রাজস্ব জমা দিতে গিয়ে অফিস সহকারী মো. মুছার দুর্ব্যবহারের শিকার হন তিনি।

অশ্লীল ভাষায় দুর্ব্যবহারের বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আছিয়া খাতুনকে জানিয়েছেন সাজু চৌধুরী।

সাজু চৌধুরী জানান, গত বছরের ৭ এপ্রিল নিজের কিছু জায়গার নামজারী খতিয়ান সৃজন করেছিলাম। সম্প্রতি জায়গাটি বিক্রি করতে খাজনা আদায় রশিদের দরকার হওয়ায় একমাস আগে ইউনিয়ন ভূমি অফিসে গেলে তারা জানায় নামজারী খতিয়ানটি এখনো তামিল করা হয়নি। পরবর্তীতে দুই সপ্তাহ ধরে ফাইলটি ইউনিয়ন ভূমি অফিসে পাঠানোর জন্য একাধিকবার অনুরোধ করা হলেও তা পাঠানো হয়নি।

‘ওই সময়ে এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. একরামুল ছিদ্দিককে জানালে তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অফিস সহকারী মো. মুছাকে দায়িত্ব দেন। এরপরও তা না পাঠানোয় মঙ্গলবার উপজেলা ভূমি অফিসে গেলে মো. মুছা অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন আমাকে। ’

গ্রাহকের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আছিয়া খাতুন বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। গ্রাহকের কাজটি দ্রুত সমাধানের জন্য কানুনগোকে বলা হয়েছে।

২০১৬ সালে বোয়ালখালী উপজেলা ভূমি অফিসে অফিস সহকারী হিসেবে যোগ দেন মো. মুছা। এরপর থেকে ভূমি অফিসে সেবা গ্রহীতাদের নানাভাবে হয়রানির অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

মো. মুছা দাবি করেছেন, উপজেলা ভূমি অফিসের আরেক অফিস সহকারী কাম নাজির লিটন বিশ্বাসের কাছে নামজারী খতিয়ানের ফাইলটি রয়েছে। তাই এর দায় লিটনের।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
এমআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa