bangla news

এপিক প্রপার্টিজের এমডিসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-১০ ৯:২১:৩৯ পিএম
এপিক প্রপার্টিজ লিমিটেডের লোগো

এপিক প্রপার্টিজ লিমিটেডের লোগো

চট্টগ্রাম: নকশা পরিবর্তন করে দেয়াল নির্মাণের প্রতিবাদ করায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল গেইটের বিপরীতে এপিক ডিভাইনের দোকান মালিককে মারধর  ও দোকানের আসবাবপত্র ভাংচুরের মামলায় এপিক প্রপার্টিজ লিমিটেডের  ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি)সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন হয়েছে।

মঙ্গলবার(১০ ডিসেম্বর) মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সালেম মোহাম্মদ নোমানের আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে আসামিদের বিরুদ্ধে বিচার কাজ শুরুর আদেশ দেন।

আসামিরা হলেন, এপিক প্রপার্টিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী এসএম আবু সুফিয়ান, পরিচালক প্রকৌশলী মো. আনোয়ার হোসেন, প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. সোলায়মান ও নিরাপত্তা অফিসার মো. তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা।

এপিক ডিভাইনের ৩১ নম্বর দোকানের মালিক শফিকুল আলম ২০১৩ সালে আসামিদের বিরুদ্ধে নগরের পাঁচলাইশ থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

বাদির পক্ষের আইনজীবী মোস্তফা মোহাম্মদ এমরান বাংলানিউজকে বলেন, নকশা পরিবর্তন করে দেয়াল নির্মাণের প্রতিবাদ করায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল গেইটের বিপরীতে এপিক ডিভাইনের দোকান মালিককে মারধর ও দোকানের আসবাবপত্র ভাংচুরের মামলায় ৪ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত।

তিনি জানান, আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পড়ে শোনালে আসামিরা নির্দোষ দাবি করেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, এপিক ডিভাইন থেকে ৩১ নম্বর দোকান ফ্ল্যাট ক্রয় করে ওষুধের ব্যবসা করে আসছিলেন শফিকুল আলম।  ২০১৩ সালের ১৩ জুন সন্ধ্যায় শফিকুলের দোকানের পশ্চিম পাশের দরজাটি বন্ধ করে সেখানে দেয়াল নির্মাণ শুরু করেন আসামিরা। এতে বাধা দিলে আসামিরা শফিকুলের দোকানে ভাংচুর করে ও তাকে মারধর করে। এ ঘটনায় ১৫ জুন পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়ের করেন শফিকুল।

আদালতে মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের পর আসামিদের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ২২ ডিসেম্বর অভিযোগ আমলে নেয়া হয়। পরে আসামিরা অভিযোগ আমলে নেয়ার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে ফৌজদারি মিস মামলা দায়ের করলেও তা আদালত খারিজ করে দেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯
এসকে/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-10 21:21:39