bangla news

গণমাধ্যমকর্মীরা আইনি সুরক্ষা পাবেন: তথ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-০৭ ৯:২৬:৪৫ এএম
বক্তব্য দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বক্তব্য দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

চট্টগ্রাম: তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য ভবিষ্যতে ‘গণমাধ্যম কর্মী আইন’ হতে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে সমস্ত গণমাধ্যমকর্মীদের আইনি সুরক্ষা দেওয়া সম্ভব। প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সবাই এর মাধ্যমে সুরক্ষা পাবেন। যখন আইনি সুরক্ষা হবে তখন যে কোনও সময় যে কাউকে ছাটাই করলে তিনি আইনি সুরক্ষা পাবেন।’

শুক্রবার (০৬ ডিসেম্বর) রাতে নগরের জিইসি মোড়ে কে স্কয়ার কনভেনশন সেন্টারে টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের একযুগ পূর্তি অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, যে আইনের মাধ্যমে ওয়েজবোর্ড হয়েছে, সে আইনে অনলাইন এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াকে অন্তর্ভুক্ত করার সুযোগ নেই। সেটি করতে হলে আইন সংশোধন করতে হবে, না হলে নতুন আইন করতে হবে। একসময় সাংবাদিকদের শ্রমিক বানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। আমরা তা সংশোধন করেছি।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেওয়ার পর যেসব সমস্যা এক যুগে সমাধান হয়নি তা ছয় মাসে সমাধান করেছি। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ টেলিভিশন বাংলাদেশে প্রদর্শন করা হতো। ভারতের কোনও জায়গায় দেখা যেত না। অফিসিয়ালি দায়িত্ব নেওয়ার পর সেটি সাত মাসের মধ্যে বাস্তবায়ন করতে পেরেছি। ক্যাবল অপারেটররা ডিটিএইচ এর মাধ্যমে যে সম্প্রচার করছে, অতীতে সেটিকে ডিজিটালাইজড করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। আমরা ডিজিটালাইজড করার জন্য কার্যকর উদ্যোগ নিয়েছি। অন্তত দশ লক্ষ ভারতের অবৈধ ডিটিএইচ বাংলাদেশে ব্যবহৃত হচ্ছে। ১৫ ডিসেম্বর সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। বিদেশি ডিটিএইচ দিয়ে যদি সম্প্রচার করা হয় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এর মাধ্যমে ৮শ থেকে ৯ শ কোটি টাকা হুন্ডি হয়ে বিদেশে চলে যাচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যতে টেলিভিশন চ্যানেল ঢাকা কেন্দ্রিক থাকবে না। এই মাস থেকেই বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্র ১২ ঘন্টা সম্প্রচারে যাবে। এছাড়া আগামী তিন মাসের মধ্যে টেরিস্ট্রিরিয়াল চ্যানেল হিসেবে সারাদেশে দেখা যাবে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি আলী আব্বাস, বিএফইউজে’র সহসভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ সহ সাংবাদিক নেতারা। ইনডিপেনডেন্ট টিভি’র ব্যুরো প্রধান অনুপম শীলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শফিক আহমদ সাজিব।

এর আগে টিভি রিপোর্টিং ও ডকুমেন্টারি ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন মন্ত্রী।

বাংলাদেশ সময়: ০৯২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
এমএম/এসি/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-07 09:26:45