bangla news

প্লেনের যাত্রীদের জন্য ভিআইপি ‘ওয়াটার বাস’

​সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-২১ ৯:৩০:৫৬ পিএম
২৫ জন যাত্রী নিয়ে ২৫ নটিক্যাল মাইলগতিতে ছুটবে ‘এসএস-২’ ওয়াটার বাস

২৫ জন যাত্রী নিয়ে ২৫ নটিক্যাল মাইলগতিতে ছুটবে ‘এসএস-২’ ওয়াটার বাস

চট্টগ্রাম: ২৫ জন যাত্রী নিয়ে ২৫ নটিক্যাল মাইল গতিতে ছুটবে ‘এসএস-১’ ওয়াটার বাস। মাত্র ২০ মিনিটে সদরঘাট থেকে পতেঙ্গা। শাটল বাসে কয়েক মিনিটে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের টার্মিনাল!

এটি আর স্বপ্ন নয়। ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে সব আয়োজন চূড়ান্ত। নারায়ণগঞ্জের একটি ডক ইয়ার্ডে ফাইবার গ্লাস দিয়ে তৈরি হয়েছে হংকং থেকে আনা নকশায় দুইটি ৩৭ ফুট লম্বা, ১১ ফুট প্রশস্ত ও ১ ফুট ড্রাফটের ওয়াটার বাস। প্রতিটি ওয়াটারবাসে দুইটি ২০০ হর্সপাওয়ারের জাপানি ইয়ামাহা ইঞ্জিন। রয়েছে জাপানি নেভিগেশনাল যন্ত্রপাতি, ওয়াইফাই সুবিধা, সোলার সিস্টেম, এয়ার কন্ডিশন। অপেক্ষা শুধু আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের। আশা করা হচ্ছে, সপ্তাহখানেকের মধ্যে এ সার্ভিস চালু হবে।

প্রাথমিকভাবে কর্তৃপক্ষ যাত্রীপ্রতি ভাড়া নির্ধারণ করেছে ৪০০ টাকা। মূলত বিমানবন্দরের আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ গন্তব্যের যাত্রীদের যাতে যানজটের কারণে ফ্লাইট মিস না হয় সে লক্ষ্যে এ ওয়াটার বাস চালু করছেন তারা। এ ভাড়ার মধ্যেই যাত্রীদের লাগেজ ওয়াটার বাসে তোলা, নামানো, বিমানবন্দরে শাটল বাসে তোলা সব সেবা অন্তর্ভুক্ত থাকবে।   

সরেজমিন দেখা গেছে, নিউমার্কেট মোড় থেকে সদরঘাট মোড়ের আগেই হাতের বামপাশে অর্ধশতাধিক গাড়ি পার্কিং সুবিধা, দোতলা আধুনিক টার্মিনাল ভবন, নিরাপদ চওড়া গ্যাংওয়ে নিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে ওয়াটার বাসের স্টেশন। টার্মিনাল ভবনের নিচতলায় রয়েছে চারটি প্লেন কোম্পানির জন্য ডেস্ক, যাত্রীদের অপেক্ষার জন্য চেয়ার। দোতলায় ভিআইপি সোফা। ছাদে হচ্ছে রুপটপ রেস্টুরেন্ট। ১ পন্টুনের সঙ্গে বাঁধা দুইটি নতুন ওয়াটার বাস। প্রতিটি বাসে ২৫টি আসন।

ওয়াটার বাসের ভেতর যাত্রীদের আসন বিন্যাসওয়াটার বাস পরিচালনার দায়িত্ব পাওয়া এসএস ট্রেডিংয়ের টার্মিনাল ম্যানেজার আসাদুজ্জামান বাংলানিউজকে জানান, সদরঘাট ও পতেঙ্গায় টার্মিনাল ভবন, গ্যাংওয়েসহ আনুষঙ্গিক অবকাঠামোগত কাজ সম্পন্ন করেছে চিটাগাং ড্রাইডক। ইতিমধ্যে কয়েক দফা ওয়াটার বাস দুইটি ট্রায়াল দিয়েছে। ২০ মিনিটে সদরঘাট থেকে বিমানবন্দর পৌঁছতে পারে।

তিনি জানান, এসএস ট্রেডিংয়ের ম্যানেজিং পার্টনার মো. সাবাব হোসেন নেভাল আর্কিটেক্টের ওপর ডিগ্রি নিয়ে এসেছেন ইংল্যান্ড থেকে। সেখানকার টেমস নদীর আদলে কর্ণফুলীর বুকে পরিবেশবান্ধব, নিরাপদ ও সময়সাশ্রয়ী বাহন হিসেবে ওয়াটার বাস সার্ভিস জনপ্রিয় করতে কাজ করছেন তিনি।

এসএস ট্রেডিংয়ের একজন কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বলেন, নিউমার্কেট থেকে বিমানবন্দর যেতে একজন যাত্রীর কমপক্ষে এক থেকে দুই ঘণ্টা লাগছে। যানজট তীব্র হলে অনেক সময় ফ্লাইট মিস করেন প্লেনের যাত্রীরা। ওয়াটার বাস শাহ আমানতের প্লেনের যাত্রীদের নির্দিষ্ট একটি অংশকে লক্ষ্য করে চালু হতে যাচ্ছে। প্রথমে দুইটি ওয়াটার বাস দিয়ে এ সার্ভিস চালু করা হচ্ছে। আরও তিনটি ওয়াটার বাস আসছে। এগুলো প্লেনের সূচির সঙ্গে মিল রেখে আসা-যাওয়া করবে। সকাল ৭টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্ন সেবা দেবে ওয়াটার বাস। প্লেনের যাত্রী ছাড়াও জরুরি প্রয়োজনে সাধারণ যাত্রীরাও এ সার্ভিস উপভোগ করতে পারবেন।

>> ‘সদরঘাট টু বিমানবন্দর’ চলবে ওয়াটার বাস

বাংলাদেশ সময়: ২১২০ ঘণ্টা, ২১ নভেম্বর ২০১৯
এআর/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-11-21 21:30:56