ঢাকা, রবিবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

‘সমকালীন বিশ্বে অদ্বিতীয় দেশপ্রেমিক নেতা বঙ্গবন্ধু’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-২২ ১০:০২:২০ পিএম
বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন

বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন

চট্টগ্রাম: সমকালীন বিশ্বে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অদ্বিতীয় দেশপ্রেমিক নেতা বলে মন্তব্য করেছে একুশে পদকপ্রাপ্ত সমাজ বিজ্ঞানী ও প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. অনুপম সেন।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) বিকেলে ‘নীতি-নৈতিকতা ও বঙ্গন্ধুর নির্দেশনা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ গৃহীত মাসব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসেবে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সেমিনার আয়োজন করা হয়।

ড. অনুপম সেন বলেন, বঙ্গবন্ধু নীতি-আদর্শে বলীয়ান হয়ে জনমানসে অসাধারণ হতে পেরেছিলেন। তার মত দৃঢ়চেতা দেশপ্রেমিক নেতা সমকালীন বিশ্বে বিরল। মৃত্যু নিশ্চিত জেনেও তিনি নীতির প্রশ্নে কোনদিন আপোষ করেননি। দেশীয় আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রে জাতির পিতার সপরিবার হত্যাকান্ডের মাধ্যমে খুনি চক্র ও তাদের কুশীলবরা মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত সকল অর্জন মুছে দিয়ে বাংলাদেশকে পাকিস্তানী ভাবাদর্শে ফিরিয়ে নেয়ার অপচেষ্টা চালায়।

তিনি বলেন, বহু সংগ্রাম আর রক্তদানের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আবার আদর্শিক পথে ফিরে এসেছে এবং অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে। এই অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে সংগঠনের নেতা-কর্মীদের নীতি-আদর্শে অবিচল থাকতে হবে।

সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধুর নীতি-নৈতিকতা ও আদর্শ সঠিকভাবে অনুসরণ করলে পথ হারাবেনা বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর আজীবনের স্বপ্ন ছিল বাঙালি জাতি মেধা-মননে অনন্য উচ্চতায় বিশ্ব দরবারে আসিন হবে। নীতি-নৈতিকতা ও আদর্শে অবিচল থেকে বাঙালি জাতিকে তিনি সেভাবে পরিচালিত করতে চেয়েছেন। সামরিক-বেসামরিক আমলাসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষের উদ্দেশ্যে সততা ও নিষ্ঠার সাথে স্বীয় কর্ম সম্পাদনের নির্দেশনা প্রদানের পাশাপাশি তিনি দুর্নীতির প্রশ্নে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছিলেন।

তিনি বলেন, দুর্নীতিমুক্ত হলেই দেশ অচিরেই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা তথা উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে।

উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও রাউজানের সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক বেদারুল আলম চৌধুরী বেদারের পরিচালনায় সেমিনারে আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. ইসমাইল খান।

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মুক্তিযুদ্ধ ও ইতিহাস গবেষক সাংবাদিক মুহাম্মদ শামসুল হক। সূচনা বক্তব্য রাখেন উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ সালাম।

সেমিনারে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মো. মঈনুদ্দিন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ, সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইউনুস গণি চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ এহেছানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য স্বজন কুমার তালুকদার, শাহাজাহান সিকদার, মুহাম্মদ আলী শাহ, মহিউদ্দিন বাবলু, জসিম উদ্দিন শাহ, অ্যাডভোকেট ভবতোষ নাথ, কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট এমএ নাসের চৌধুরী, দিদারুল আলম বাবুল, জাফর আহমেদ, এসএম শফিউল আজম, শাহনেওয়াজ চৌধুরী, নজরুল ইসলামসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৩ ঘণ্টা, আগস্ট ২২, ২০১৯
এসকে/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-22 22:02:20