bangla news

সিডিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে চুল পরিমাণ গ্যাপ নেই: নাছির

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-২৬ ৬:২৮:২৮ পিএম
বক্তব্য দেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বক্তব্য দেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

চট্টগ্রাম: সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সিডিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে আমার চুল পরিমাণও গ্যাপ নেই। আমি সব ধরনের সহযোগিতা দিতে চাই। কিছু দিন আগে সাগরিকা স্টেডিয়াম এলাকায় আউটার রিং রোডের একটি সমস্যা সমাধান করেছি।

শুক্রবার (২৬ জুলাই) চসিকের সম্মেলন কক্ষে বাসস্থান ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যান্ড কনসালটেন্টস লিমিটেড নামের পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের অধীনে ম্যাস রেপিড ট্রানজিটের (এমআরটি) প্রাক-যোগ্যতা সমীক্ষা (প্রিজিবিলিটি) প্রতিবেদন উপস্থাপন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, চট্টগ্রাম দ্বিতীয় বৃহত্তম বিভাগীয় শহর, বন্দরনগর, বাণিজ্যিক রাজধানী। প্রধানমন্ত্রীর ভিশন বাস্তবায়ন করতে হলে বন্দরের সর্বোচ্চ সক্ষমতা বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, ৬০ বর্গমাইলের শহরে প্রতিদিন চাপ বাড়ছে। প্রয়াত মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু বিরোধিতা বা মামলার কারণে হয়নি।

জনবান্ধব গণপরিবহনের জন্য এমআরটির পরিকল্পনা নিয়েছেন জানিয়ে মেয়র বলেন, এটি অনেক আগে নেওয়া উচিত ছিল। নগরের জন্য মঙ্গল হতো। এখন ফ্লাইওভারের জন্য এমআরটি লাইন নির্মাণে প্রতিবন্ধকতা আসছে। সিডিএ নো অবজেকশন সনদ (এনওসি) দিলে এমআরটি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেব।

তিনি বলেন, ৩২টি সেবা সংস্থা। কেউ কারও প্রতিদ্বন্দ্বী নয়। একমাত্র সিটি করপোরেশনের মেয়র ভোটে নির্বাচিত। মেয়রের কাছে জনপ্রত্যাশা বেশি। তাই সরকারের অংশ হিসেবে মেয়রকে সহযোগিতা করা উচিত। একে অপরের পরিপূরক।

এমআরটি বিষয়ে বন্দর, রেলওয়েসহ সব সংস্থার সঙ্গে আলোচনার ওপর গুরুত্বারোপ করেন মেয়র।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিডিএ চেয়ারম্যান বলেন, প্রকল্প শুরুর আগে সব সংস্থার সঙ্গে আলোচনা ও সমন্বয় দরকার। এখানে বন্দর ও রেলওয়ের প্রতিনিধি থাকলে ভালো হতো। মিরসরাই ও হাটহাজারী পর্যন্ত সম্প্রসারণের সুযোগ রাখার কথা এসেছে।

যে প্রকল্প শুরু হয়েছে সেটি বন্ধ করা ঠিক হবে না। বন্দরকেও বাঁচাতে হবে। এটি দেশের লাইফ লাইন। এমআরটির ডিপো নগরের বাইরে হাটহাজারী বা মিরসরাই নিয়ে যেতে হবে। নগরে ৬০ একর জায়গা পাওয়া কঠিন।

সঞ্চালনায় ছিলেন চসিকের উপ প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৫ ঘণ্টা, ২৬ জুলাই, ২০১৯
এআর/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-07-26 18:28:28