bangla news

চসিকের বাজেট অধিবেশন ৩০ জুলাই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-২১ ৪:৩৩:০৪ পিএম
সাধারণ সভায় বক্তব্য দেন চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

সাধারণ সভায় বক্তব্য দেন চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট অধিবেশন অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) এ বাজেট ঘোষণার দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।

বর্তমানে নতুন অর্থবছরের বাজেট প্রণয়নের কাজ চলমান রয়েছে বলে জানা গেছে। এবার গতানুগতিক বাজেট না করে বাস্তবায়নযোগ্য বাজেট প্রণয়নের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

রোববার (২১ জুলাই) দুপুরে থিয়েটার ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে চসিক পঞ্চম নির্বাচিত পরিষদের ৪৮তম সাধারণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে মেয়র নতুন অর্থবছরের বাজেট অধিবেশন অনুষ্ঠানের তারিখ ঘোষণা করেন।

মেয়র বলেন, গতানুগতিক ধারার বাজেট প্রণয়ন থেকে বেরিয়ে এসে এবার আয়মুখি ও বাস্তবায়নযোগ্য বাজেট তৈরির লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। সিটি করপোরেশন গৃহীত কয়েকটি আয়বর্ধক প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়িত হয়েছে। বাকি প্রকল্পের কাজগুলো চলমান রয়েছে।

এর মধ্যে ফইল্যাতলী বাজার কিচেন মার্কেট, চকবাজার কিচেন মার্কেট, আগ্রাবাদ সিংগাপুর-ব্যাংকক মার্কেট সম্প্রসারণ করে হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সহায়তায় ‘হাইটেক কমপ্লেক্স’ নির্মাণ করা হচ্ছে। তাছাড়া রেয়াজুদ্দিন বাজার শাহ আমানত মার্কেট, পাহাড়তলী বাজার আবদুল আলী মার্কেট আধুনিকায়নের কাজ চলমান রয়েছে। এই প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন কাজ সম্পন্ন হলে সিটি করপোরেশনের আয় আরও বাড়বে।

তিনি আয় খাতমুখি বাজেট প্রসঙ্গে বলেন, রাজস্ব আয়ের প্রতিও আমরা সচেষ্ট। গত অর্থবছরের তুলনায় এবার রাজস্ব আয় প্রায় ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে রাজস্ব আয় ছিল ৩৮.০৫ শতাংশ। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে রাজস্ব আয় ৪১ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। রাজস্ব আয় প্রায় ১৫ কোটি টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি বলেন, রাজস্ব আয় বাড়ানোর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। চসিকের ব্যয় নির্বাহের জন্য রাজস্ব আয় অন্যতম খাত।

সভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম গতিশীল করতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ, খাল-নালা বা অনির্ধারিত স্থানে ময়লা আবর্জনা নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মেট্রোপলিটন পুলিশের সঙ্গে সমন্বয়করণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে দাপ্তরিকভাবে চিঠি পাঠানো হবে বলে জানা গেছে।

মেয়র জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে থাকা ডাস্টবিন অপসারণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন।

সভায় ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়া রোগ প্রতিরোধে সিটি করপোরেশনের নেয়া পদক্ষেপের পাশাপাশি জনসচেতনতা সৃষ্টিতে কাউন্সিলরদের কার্যক্রম পরিচালনার আহবান জানান মেয়র। তিনি ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের প্রত্যেক ওয়ার্ডে মশা নিধন কার্যক্রম, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম তদারকির মাধ্যমে জনআস্থা অর্জনে সচেষ্ট হওয়ার পরামর্শ দেন।

ভারপ্রাপ্ত সচিব আবু শাহেদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভায় বিগত সভার কার্যবিবরণী আলোচনা সাপেক্ষে অনুমোদন দেয়া হয়। সভায় প্যানেল মেয়র, কাউন্সিলর, সংরক্ষিত কাউন্সিলর, চসিক প্রধান নির্বাহি মো. সামসুদ্দোহা, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া, মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাসেমসহ সংশ্লিষ্ট সেবা সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৫ ঘণ্টা, জুলাই ২১, ২০১৯
এসি/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-07-21 16:33:04