ঢাকা, সোমবার, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৬ আগস্ট ২০১৯
bangla news

বন্দর রোডের দীর্ঘ যানজট, নষ্ট হচ্ছে কর্মঘণ্টা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-১৬ ৪:০৫:৪৫ পিএম
চট্টগ্রামের বন্দর রোডে নিত্যদিনই লেগে থাকে দীর্ঘ যানজট। এতে মানুষের যেমন ভোগান্তি বাড়ছে, তেমনই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে হাজারও কর্মঘণ্ট। ছবি: সোহেল সরওয়ার/বাংলানিউজ

চট্টগ্রামের বন্দর রোডে নিত্যদিনই লেগে থাকে দীর্ঘ যানজট। এতে মানুষের যেমন ভোগান্তি বাড়ছে, তেমনই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে হাজারও কর্মঘণ্ট। ছবি: সোহেল সরওয়ার/বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টা। কাস্টমস মোড় সড়ক। চট্টগ্রাম বন্দরের দিকে যাওয়ার সড়কের এক পাশে সারি সারি যানবাহন। পথজুড়ে কোথাও দাঁড়িয়ে আছে ১০ চাকার লরি, কোথাও বা বাস। 

মাঝেমধ্যে কালো ধোঁয়া ছাড়ছে। সেসব এড়িয়ে যেখানে একটু জায়গা মিলছে সেখানে গিজগিজ করছে সিএনজি অটোরিকশা আর প্রাইভেট কার। রিকশা তো আছেই!

বন্দরমুখী যানজটের কারণে গোটা নগরের রাস্তায় রাস্তায় বিভিন্ন রকম গাড়ির চলাচল আর একে কেন্দ্র করে বেঁধে যাচ্ছে যানজট। আগ্রাবাদ থেকে শুরু করে বারিক বিল্ডিং, ফকিরহাট, নিমতলা, পিসি রোড, টোল রোড, বড়পুল, কাস্টমস মোড়, সল্টগোলা, ইপিজেডসহ বিমানবন্দর সড়কে যানজটের কারণে কার্যত অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বন্দরনগরীতে।

যানজটের কারণে ৩০ মিনিটের পথ যেতে এখন সময় লাগছে তিন ঘণ্টা, কোনো কোনো ক্ষেত্রে এরচেয়েও বেশি। ঘণ্টার পর ঘণ্টা নিত্যদিনের এই জেট আটকে মানুষের ভোগান্তি যেমন বাড়ছে তেমনই নষ্ট হচ্ছে কর্মঘণ্টা। 

কাস্টমস মোড় এলাকা থেকে কাজীরদেউড়ি মোড়ে অফিসে যাচ্ছিলেন আরমান উর-ইসলাম। যানজটের কারণে তিনি বাধ্য হয়ে হেঁটেই রওয়ানা দিয়েছেন।
 
আরমান বাংলানিউজকে বলেন, বাসা থেকে সকাল ১১টায় বের হয়েছি। তীব্র যানজটের কারণে অনেকক্ষণ গাড়িতে বসেছিলাম। কিন্তু কোনো উপায়ন্তর না দেখে অবশেষে হেঁটেই অফিসের পথ ধরেছি। বন্দর রোডে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজট লেগেই আছে। 

‘অবস্থা এমন যে, কোনো কাজের জায়গায় ঠিক সময়ে পৌঁছতে হলে ঘড়ি ধরে সময়ের হিসেব করে বের হলে চলবে না। যানজটের সৌজন্যে বেরিয়ে পড়তে হচ্ছে নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই।’ 

বন্দর রোডে যানজটের কারণে বারিক বিল্ডিং, ফকিরহাট, নিমতলা, দেওয়ানহাট, টাইগারপাস, লালখান বাজার ও জিইসি মোড়েও যানবাহনের জটলা সৃষ্টি হয়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এসব জায়গায় যানজট আর ট্র্যাফিক সিগন্যালে আটকে থাকা গাড়ি না যাচ্ছে সামনে, না পিছনে! 

যানজট আরও তীব্র হচ্ছে দেওয়ানহাট থেকে আগ্রাবাদের ফকিরহাট পর্যন্ত ফুটপাতের অনেকটা অংশ দখল করে নেয় পার্ক করে রাখা গাড়ির লাইনের কারণে। পায়ে হেঁটে চলা ফুটপাতও দখলমুক্ত নয়। ওইখানেও ঠেলা গাড়ি, ফুল, ফল, চা, বই ও ভাসমান খাবারের দোকানের দখলে। এক কথায়, বন্দর রাস্তা মানেই যানজট আর একটানা বিরক্তিকর গাড়ির হর্ন।

সোনালী ব্যাংকের বন্দরনগরীর নিউমার্কেট শাখায় কর্মরত মিনারুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, যানজটের কারণে অফিসগামী লোকজন সময় মতো অফিসে আসতে পারে না। ঠিক সময়ে বাড়ি থেকে বেরোলেও অফিসে পৌঁছতে দেরি হয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়টি দেখবে কে? কবে যানজটমুক্ত নগর হবে?

এই সড়কে চলাচলকারী গণপরিবহনের নিত্যযাত্রী আবুল কাশেম বলেন, যানজটের কারণে বেশির ভাগ দিনই কাস্টমস মোড় থেকে দেওয়ানহাট পর্যন্ত আসতেই দুই ঘণ্টা লেগে যায়। একটা স্থায়ী সমাধান না হওয়া পর্যন্ত মানুষের এই দুর্ভোগ থেকে রেহাই নেই।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২০ ঘণ্টা, জুলাই ১৬, ২০১৯
জেইউ/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-07-16 16:05:45