ঢাকা, সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৭ জুন ২০১৯
bangla news

লাল-হলুদ কাপড়ের রঙে বুন্দিয়া আর জিলাপি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৭ ৫:২৭:৩০ পিএম
জিলাপি, বুন্দিয়া, মিষ্টিসহ বিভিন্ন খাদ্যপণ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে ক্ষতিকর রং

জিলাপি, বুন্দিয়া, মিষ্টিসহ বিভিন্ন খাদ্যপণ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে ক্ষতিকর রং

চট্টগ্রাম: টেক্সটাইল মিলে ব্যবহৃত কাপড়ের রং দিয়ে মানুষের জন্য ক্ষতিকর বুন্দিয়া, জিলাপি, মিষ্টি তৈরির সময় হাতেনাতে ধরেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

সোমবার (২৭ মে) অধিদফতরের জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামানের নেতৃত্বে নগরের কামালবাজার এলাকায় পরিচালিত তদারকিমূলক অভিযানে বিষয়টি ধরা পড়ে।

মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান বাংলানিউজকে জানান, অনুমোদিত ফুড কালারের দাম বেশি হওয়ায় কম দামি ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেক্সটাইল কালার ব্যবহার করায় চৌধুরী মিষ্টি ভাণ্ডারকে ৭০ হাজার টাকার জরিমানাসহ ১৪ কেজি মিষ্টি ধ্বংস করা হয়েছে। একই অপরাধে নূপুর মিষ্টি বিতানকে ৩০ হাজার টাকার জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি জানান, ক্ষতিকর রং দিয়ে তৈরি এসব খাবার নিম্নবিত্ত শ্রেণির ক্রেতাদের আকর্ষণের জন্য তৈরি করা হয়। বাস্তবে রঙের সঙ্গে স্বাদের কোনো সম্পর্ক নেই। জনসচেতনতা সৃষ্টি হওয়ায় মানুষ রং দেওয়া খাবার খেতেই চায় না।   

অধিদফতরের বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক প্রিয়াংকা দত্ত বায়েজিদ থানার কামাল স্টোরকে মূল্য তালিকা না থাকায় ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নাসরিন আক্তার একই এলাকায় মূল্যতালিকা না থাকায় বেলালের সবজির দোকান ও জুলহাজের সবজির দোকানকে ১ হাজার টাকা করে মোট ২ হাজার টাকা জরিমানা করেন। ‌

বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী প‌রিচালক বিকাশ চন্দ্র দাস মোড়কে মুদ্রিত সর্বোচ্চ খুচরা মূল্যের (এমআরপি)  চেয়ে বেশি মূল্যের স্টিকার বসানোর অপরাধে কাপ্তাই রাস্তার মাথায় অবস্থিত জীবিয়া স্টোরকে ১০ হাজার টাকা এবং উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখবিহীন ব্রেড, রসমালাই, বিক্রয় নিষিদ্ধ ড্রিংকস ও মেয়াদোত্তীর্ণ বার্থডে কেক বিক্রয়ের জন্য সংরক্ষণ করায় ফুলকলি ফুড প্রোডাক্টসের কাপ্তাই রাস্তার মাথার আউটলেটকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১০ ঘণ্টা, মে ২৭, ২০১৯
এআর/টিসি

 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-27 17:27:30