bangla news

মধ্যবর্তী নির্বাচন দিতে সরকারকে বাধ্য করা হবে: অলি আহমদ

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২০ ৯:৩৯:৪৪ পিএম
বক্তব্য দেন এলডিপি চেয়ারম্যান অলি আহমদ

বক্তব্য দেন এলডিপি চেয়ারম্যান অলি আহমদ

চট্টগ্রাম: লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি)’র চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেছেন, ‘জনগণকে সাথে নিয়ে মধ্যবর্তী নির্বাচন দিতে সরকারকে বাধ্য করা হবে। আগামী তিন মাসে দেশের প্রতিটি জেলায় সফর করে জনগণকে সাথে নিয়ে কাজ করবো।

সোমবার (২০ মে) চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা এলডিপি’র উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অলি আহমদ বলেন, ‘এভাবে দেশ চলতে পারেনা। রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছি। কাউকে লুটপাট করে খেতে দিবোনা। দেশবাসীকে অনিশ্চয়তার মধ্যে রেখে যেতে চাইনা।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে কেউ বিশটি দালানের মালিক, কেউ পঞ্চাশটা দালানের মালিক। আগে যাদের রিকশায় চড়ার পয়সা ছিলনা এখন তারা লেটেস্ট গাড়ি নিয়ে চলাফেরা করে। তারেক রহমান লন্ডনে থাকলেও চেষ্টা করেন দেশের মানুষের খবর নেয়ার জন্য। কিন্তু তার পক্ষে দেশের মানুষের বাস্তব অবস্থা জানা সম্ভব না।’

অলি আহমদ বলেন, ‘বর্তমানে কৃষকরা মাঠের ধান ঘরে উঠাচ্ছেন না। মাঠেই ধান জ্বালিয়ে দিচ্ছেন। তাহলে বোঝা যায় কৃষকেরা কী কষ্টে আছেন। ডলারের দাম প্রতিনিয়ত বেড়ে যাচ্ছে। অর্থনীতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশে যেকোন সময় ধস নামতে পারে। যতগুলো ব্যাংক বাংলাদেশে রয়েছে এতগুলো ব্যাংক ১৮ কোটি লোকের প্রয়োজন ছিলনা। সাধারণ জনগণের গচ্ছিত টাকাগুলো নিয়ে কেউ মালয়েশিয়া, কেউ কানাডা, কেউ সিঙ্গাপুর পাচার করছে।’

এলডিপি চেয়ারম্যান বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকে ৭ লক্ষ হাজার কোটি টাকা থাকার কথা থাকলেও ৩ লক্ষ হাজার কোটি টাকাও নাই। বাকি টাকা সব উধাও। তাই ব্যাংকিং ব্যবস্থাতেও যেকোন সময় ধস নামতে পারে। যেখানে সাবেক প্রধান বিচারপতিকে গলা ধাক্কা দিয়ে বাংলাদেশ থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। সেখানে আমার আপনার অবস্থা কী হতে পারে সেটা অকল্পনীয়।

তিনি বলেন, ‘গত নির্বাচনে আপনারা দেখেছেন কীভাবে ভোট হয়েছে। প্রার্থী ছিল আওয়ামী লীগ, ভোটার ছিল পুলিশ-বিজিবি। ভোটের সাথে জনগণের কোন সম্পৃক্ততা ছিলনা। এখন যারা এমপি আছেন তারা পুলিশ প্রশাসনের এমপি, জনগণের এমপি নন। বর্তমান সরকারের সাথে সাধারণ জনগণের কোন সম্পৃক্ততা নেই।

তিনি বলেন, ‘১৮ কোটি মানুষের আর্তনাদ কোথাও শান্তি নাই। হাজার হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গায়েবি মামলা হয়েছে। অনেকে জেলে রয়েছেন, অনেকে জামিনও পাননি। এ অবস্থায় বিএনপির লোকেরা স্যুট-টাই পরে সংসদে গিয়ে আত্মসমর্পণ করে এ সরকারকে বৈধতা দিয়েছেন। এর থেকে লজ্জার বিষয় আর কিছু হতে পারেনা।’

উত্তর জেলা এলডিপি’র সভাপতি নুরুল আলম তালুকদারের সভাপতিত্বে ও দক্ষিণ জেলা এলডিপি’র সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া শিমুলের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা এলডিপি’র সভাপতি অ্যাডভোকেট কফিল উদ্দিন চৌধুরী, দিপেন দেওয়ান, জাহাঙ্গীর আলম, কামরুল ইসলাম, নগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, এসএম নিজাম উদ্দিন হারুন, দিদারুল আলম, ফজলুল কাদের তালুকদার, শাহাজাহন চৌধুরী, আনোয়ার সাদেক, আবু মুজাফর মো. আনাছ, মো. ইলিয়াস, দোস্ত মোহাম্মদ, দিদারুল আলম, এয়াছিন লিটন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২১২৮ ঘণ্টা, মে ২০, ২০১৯
টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-20 21:39:44