ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২২ মে ২০১৯
bangla news

গরিবরা নয়, শিক্ষিত-জ্ঞানপাপীরা দুর্নীতি করে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-২৪ ৮:০৪:১৮ পিএম
বক্তব্য দেন দুদক কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খান। ছবি: উজ্জ্বল ধর

বক্তব্য দেন দুদক কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খান। ছবি: উজ্জ্বল ধর

চট্টগ্রাম: দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কমিশনার (অনুসন্ধান) ড. মোজাম্মেল হক খান বলেছেন, ‘গরিব মানুষ, সাধারণ মানুষ দুর্নীতি করে না। শিক্ষিত জনগণ, যারা জ্ঞানপাপী তারা দুর্নীতি করে। তাদেরকে বুঝানো যায় না। তাদেরকে ধরাও কঠিন ব্যাপার।’

বুধবার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসন এবং দুদক বিভাগীয় কার্যালয় এ মতবিনিময় সভা আয়োজন করে।

দুদক কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খান বলেন, ‘দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে চায় না, শঙ্কিত থাকে। নিচের লোকেরা (নিম্ন পদস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারী) ১০০/২০০ টাকা দুর্নীতি করে, কিন্তু উপরের লোকেরা (উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারী) কোটি কোটি টাকা দুর্নীতি করে। এসব শুধু প্রতিষ্ঠান নয়, রাষ্ট্রের জন্যও ক্ষতিকারক। এসব বিষয় আমাদের দেখা দরকার।’

সভায় দুদক কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খানসহ অতিথিরা। ছবি: উজ্জ্বল ধরতিনি বলেন, ‘দুর্নীতি প্রতিরোধে টিম ওয়ার্কের মাধ্যমে সবাইকে সমানভাবে কাজ করতে হবে। একটা অফিসে সিনিয়র অফিসরা ঘুষ খেলে, জুনিয়ররা জানে না, তা কিন্তুনয়। সবাই তা বুঝে। সংঘবদ্ধভাবেই দুর্নীতিকে প্রতিরোধ করতে হবে।’

ড. মোজাম্মেল হক খান বলেন, ‘আয়বহির্ভূত সম্পদ বা দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত সম্পদ সম্পর্কে সিস্টেম অনুসারে দুদককে জানাতে হবে। এক্ষেত্রে নামে-বেনামেও হতে পারে। যাচাই বাছাই করার পর দুদক টিম অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে

কিছু কিছু স্কুল-কলেজে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিরা সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে অন্যায়ভাবে আয় করার মানসিকতা নিয়ে ওই পদে আসেন। এতে ওই প্রতিষ্ঠান প্রধানের সাথে ম্যানেজিং কমিটির দ্বন্দ্বে প্রতিষ্ঠানের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক অধ্যাপক প্রদীপ চক্রবর্তী।

এ বিষয়ে দুদক কমিশনার বলেন, ‘বিষয়টি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অবহিত করা হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় যোগ্য ব্যক্তিকে নিয়োগ করা প্রয়োজন। যিনি কখনও স্কুলে যাননি তিনিই স্কুল কমিটির সভাপতি হন। এ বিষয়টি থেকে উত্তরণের জন্য আপাতত আমাদের আল্লাহর কাছে দোয়া করতে হবে।’

চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় কমিশনার শংকর রঞ্জন সাহার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন দুদকের মহাপরিচালক (প্রতিরোধ) সারোয়ার মাহমুদ, চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলাম, জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন, চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মঈনুল হাসান, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা, হাটহাজরী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৪, ২০১৯
এসকে/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম দুদক
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-04-24 20:04:18